196 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

আর্থিক বিবেচনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকা আইনজীবী সমিতির, আদালত খোলে দেওয়া দাবি।

  • 16
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    16
    Shares

মুহাম্মদ রফিকুল ইসলামঃ-
আইনজীবীদের আর্থিক সংকটের বিবেচনায় প্রস্তাবিদ আদালত কর্তৃক তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার আইন ২০২০ মহান জাতীয় সংসদে পাশ না করার দাবি জানিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আদালত খোলে দেওয়া দাবিতে ঢাকা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান বরাবর আবেদন করা হয়েছে। গত ২৮ জুন ২০২০ রবিবার, সমিতির সভাপতি মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হোসেন আলী খান (হাসাম) সমিতির প্যাডে যৌথ স্বাক্ষরে এ আবেদনটি করেন। আবেদনে যথাযথ সম্মান জানিয়ে তাঁরা বলেন, ঢাকা আইনজীবী সমিতি এশিয়ার সর্ব বৃহত্তম বার। যার বর্তমান সদস্য সংখ্যা ২৫,০০০/- (পচিশ হাজার) এর উর্ধ্বে। বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস জনিত পরিস্থিতিতে বিগত ১১ মে ২০২০ তারিখ হইতে ভার্চুয়াল আদালত চলমান রয়েছে। ভার্চুয়াল আদালত চলমান থাকায় অধীকাংশ বিজ্ঞ আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ ও চাপা ক্ষোপ বিরাজ করছে। বিজ্ঞ আইনজীবীদের প্রশিক্ষণ বিহীন ভার্চুয়াল আদালত পরিচালিত হওয়ায় অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সফলতার মুখ দেখা যাচ্ছেনা। তাদের দাবি চলমান ভার্চুয়াল আদালত এর ব্যবস্থার কারনে ঐতিহ্যবাহী এই বিচার ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে।

আবেদনে তাঁরা বলেন, যেহেতু বিজ্ঞ আইনজীবীরা শুধু আইন পেশার উপর ভিত্তি করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করে। সেহেতু ভার্চুয়াল আদালত চলমান থাকায় অধিকাংশ আইনজীবীগন আর্থিক সংকটে ভুগছেন। দৈনন্দিন করোনা পরিস্থিতি উর্ধগতি হলেও দেশের অর্থনীতির করা চিন্তা করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকল শপিংমল, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও কলকারখানা খোলে দেওয়া হয়েছে। দেশের একপ্রান্ত থেকে অপরপ্রান্তে রেল, বাসসহ ছোট-বড় সকল যানবাহন চলাচল করছে। এমতাবস্থায় আইনজীবীদের আর্থিক সংকটের কথা বিবেচনা না করে যদি প্রস্তাবিদ আদালত কর্তৃক তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার আইন ২০২০ মহান জাতীয় সংসদে পাশ করা হয়। তবে দেশের সকল আইজীবীরা চরম আর্থিক সংকটের পড়ে যাবে। যা থেকে কেটে ওঠা আইনজীবীদের জন্য অসম্ভব হয়ে পড়তে পারে। তাই আইনজীবীদের আর্থিক সংকটের বিবেচনা করে প্রস্তাবিদ আদালত কর্তৃক তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার আইন ২০২০ মহান জাতীয় সংসদে পাশ না করে সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আদালত খোলে দেওয়া জন্য আবেদনে আহবান জানান। তাঁরা এই আবেদনটির অনুলিপি, গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয় ও পাঠিয়েছে।

  • 16
    Shares