154 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

উইন্ডিজ সিরিজ দেশের আম্পায়ারদের জন্যও সুযোগ

উইন্ডিজ সিরিজ দেশের আম্পায়ারদের জন্যও সুযোগ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

খেলাধুলাঃ সামর্থ্যের অভাব নেই। তবুও পর্যাপ্ত সুযোগ না পাওয়া, সঙ্গে নিজেদের ভুলগুলো নিয়ে কাজ না করার কারণেই, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ভালো করতে পারছেন না বাংলাদেশের আম্পায়াররা। আর্থিক নিরাপত্তা না থাকায়, সাবেক ক্রিকেটাররা আগ্রহী হচ্ছেন না এ পেশায়। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে প্রথমবার দেশের আম্পায়াররা পুরো সিরিজ পরিচালনার সুযোগ পাবেন। যা কাজে লাগিয়ে নিজেদের যোগ্যতার প্রমাণ দিতে বলছেন বিসিবির চিফ আম্পায়ার্স কোচ এনামুল হক মনি।

দুই দশকের বেশি সময়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পথচলায়, প্রাপ্তির সঙ্গে হতাশার গল্পও আছে বিস্তর। পাওয়া না পাওয়ার দাঁড়িপাল্লায় হতে পারতো অনেক কিছুই। অন্য অনেক ক্ষেত্রের মতো আক্ষেপ আছে আম্পায়ারিংয়েও। কখনোই আইসিসির এলিট আম্পায়ারদের তালিকায় ছিলেন না লাল-সবুজের কেউ।

কোচিংয়ে যতটা আগ্রহ ক্রিকেটারদের, আম্পায়ারিংয়ে যেন ততটাই অনাগ্রহ। ফলে এক এনামুল হক মনি ছাড়া আইসিসির ‘ইমার্জিং প্যানেল আম্পায়ার’ ছিলেন না কোনো বাংলাদেশি। তবে এনামুল বললেন, সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে বাংলাদেশিরা পারবে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার নজর কাড়তে।

বিসিবি’র চিফ আম্পায়ার্স কোচ এনামুল হক মনি বলেন, টেস্ট ক্রিকেটে আম্পায়ারিং করা একটা বিরাট সুযোগ একইসঙ্গে অনেক বড় একটা অর্জনও। টেস্টে বাংলাদেশি আম্পায়ারদের জন্য সুযোগ আছে। আমরা জানি এখন থেকে স্বাগতিক আম্পায়াররা টেস্ট ম্যাচ পরিচালনা করবে। সেক্ষেত্রে আমরা যদি সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারি, মাঠে ভালো করতে পারি, তাহলে হয়তো আইসিসি আবারো ভাববে বাংলাদেশি আম্পায়ারদের বিষয়ে।

সুযোগ একেবারে শেষ হয়ে যায়নি। করোনা আর্শিবাদ হয়ে এসেছে সৈকত-মুকুলদের জন্য। আইসিসির নিয়ম অনুয়ায়ী হোম ভেন্যুতে স্বাগতিক আম্পায়াররা দায়িত্ব পালন করবেন। তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই টেস্টে সুযোগ আসছে। নিজেদের প্রমাণ করে আইসিসির নজরে আসার সম্ভাবনা আছে।

তাইতো এবার নতুন লক্ষ্যে মাঠে নেমেছে বিসিবি। এনামুলরা কাজ করছেন তাদের উত্তরসূরী নির্বাচনে। নতুনদের প্রস্তুত করতে পাঁচ দিনের কর্মশালার আয়োজন করেছে বোর্ড। যা চলবে বুধবার পর্যন্ত।