56 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

ক্ষমতাসীন নেতা ও স্থানীয় সন্ত্রাসীদের জোরে সিরাজদিখানে অন্যের জমি দখল করে ঘর নির্মাণের পায়তারার অভিযোগ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

 লতা মন্ডল,সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি ঃ মুন্সীগঞ্জ সিরাজদিখান উপজেলায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে এক ব্যাবসায়ীর ২৫.৮০ শতাংশ জমি ক্ষমতাসীন নেতা ও স্থানীয় সন্ত্রাসীরা জোর করে ঘর তুলে গাছ লাগাবে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পাশাপাশি তাঁরা ওই ব্যাবসায়ীর বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

গত ২২মার্চ উপজেলার মধ্যপাড়া ইউনিয়নের বাহেরকুচি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় গতকাল সোমবার জমির মালিক নজরুল ইসলাম ঢালী সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবর ০৯ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযুক্তরা হলেন বাহেরকুচি গ্রামের মৃত মন্তাজ উদ্দিন ফকিরের ছেলে মোঃ ইদ্রিস,সাব্বির আহম্মেদ,মোঃ সজিব,মোঃ সাত্তার কাল, কাকালদী গ্রামের মোঃ মধু,মোঃ আনোয়ার,মোঃ অনিক,মোঃ আতিকুর রহমান।

উপজেলা ভূমি কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, মোঃ ইদ্রিস গং মালপদিয়া মৌজায় ৯০৪ নং খতিয়ানে আর এস ৩৩ নং দাগে ১১ শতাংশ জায়গায় জোর করে ঘড় তোলতে ও গাছ লাগিয়ে জমি দখল করতে গেলে নজরুল ইসলাম ঢালীর লোকজন তাতে বাধা দেয়। এ ঘটনা নিয়ে সিরাজদিখান সহকারি কমিশনার (ভ’মি) অফিসে একটি মিস কেইস হয় যা এখনো চলমান।

নজরুল ইসলাম ঢালী বলেন, আমার জায়গায় ঘড় নির্মান ,গাছ লাগানো, জমি দখলের পায়তারা করে আবার আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক অভিযোগ এনে একটি সংবাদ সম্মেলন করা হয়। যা বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকা, ইলেট্রোনিক্স মিডিয়া, অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচারিত হয়। আমি মালপদিয়া মৌজায় ৯০৪ নং খতিয়ানে আর এস ৩৩ নং দাগে ১১ শতাংশ জায়গা ২০১৭ সালে ও একই মৌজার ৯০৩ নং খতিয়ানে একই দাগে মোট ২৫.৮০ শতাংশ জমি ক্রয় করি। এইকই দাগ ও খতিয়ানের ১৪.৮০ শতাংশ জায়গার জন্য মিসকেইস করেছি।

আমার নিকট বৈধ দলিল পত্র রয়েছে। নজরুল ইসলাম ঢালী এই মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক সংবাদ সম্মেলনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি আরো বলেন, মোঃ ইদ্রিসসহ একটি কুচক্রি মহল স্থানীয় সন্ত্রাসীদের নেতৃত্বে আমার জমি দখল নেওয়ার জন্য ষযন্ত্রমূলক মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন এই সংবাদ সম্মেলন করে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক।

ইদ্রিস মিয়ার স্ত্রী পারভীন বেগম বলেন সংবাাদ সম্মেলন করেছি ও ওই জায়গায় আমাদের জমি রয়েছে।

সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী মহিউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, আমি গত ২১ জানুয়ারী নজরুল ঢালীর কর্মচারী মোঃ আক্তার হোসেনর দাখিলকৃত অভিযোগের প্রেক্ষিতে মোঃ ইদ্রিস ,সাব্বির আহম্মেদ গং কে স্ব স্ব পক্ষের প্রযোজনী কাগজপত্র ও সাক্ষিসহ প্রমানাদী আনতে বলে বিবাদী ৯জনকে নোটিশ করলে ওই দিন মোঃ ইউদ্রিস সহ নয়জন কেউ কোন কাগজ নিয়ে আসেন নি। এতেই বুঝা যায় মোঃ ইদ্রিস গং নজরুল ইসলাম ঢালীকে মিথ্যা হয়রানী করছে।

সিরাজদিখান সহকারী কমিশনার ( ভূমি) আহম্মেদ সাব্বির সাজ্জাদ বলেন,নজরুল ইসলাম ঢালীর জায়গা নিয়ে একটি মিসকেইস চলমান রয়েছে ওই স্থানে কেউ ঘড় নির্মানের পায়তারা করলে তা ঠিক হবে না।