340 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

গোকর্ন ঘাটে আদলাতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ

  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares

পথিক রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরতলীর গোকর্ণঘাটে ১৯৬৭ দাগের ১০ শতাংশ ও ১৯৯৮ দাগে ৯ শতাংশ ভিটির জায়গা মো: আফরোজ মিয়া খরিদ সূত্রে মালিক হয়ে দীর্ঘদিন যাবত ভোগ দখল করে আসছিলেন। এর মধ্যে এলাকার কাউন্সিরর ফেরদৌস মিয়া গং পেশীশক্তি প্রয়োগ করে জায়গাটি জোর পূর্বক দখল সহ স্থাপনা নির্মাণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এ ব্যাপারে ভুমির মালিক আফরোজ মিয়া বিজ্ঞ বাহ্মণবাড়িয়া সদর সিনিয়ার সহকারী জর্জ আদালতে সম্পত্তি রক্ষা সহ অবৈধ নির্মান ব›েধর জন্য একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- ৩৫১/২১ । আদালত মামলার সত্যতা পেয়ে ফেরদৌস গং সহ উল্লেখিত বিবাদীগনের নামে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারী করেন। কিন্তু আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিবাদীগণ বাদীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে জিম্মি করে দিন রাতে স্থাপনার কাজ দ্রুত গতিতে শেষ করেছে বলেও স্থানী পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়েছে।
স্থাপনার নির্মাণের বিষয়ে কাউন্সিলর ফেরদৌস মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান-গ্রামবাসী মিলে ঈদগাহ মাট করা হয়েছে,তারই পাশে এলাকাবাসী মিলে স্কুল করার উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে।তারা আদালতে থানায় বিভিন্ন অভিযোগ দিয়েছে স্কুল কমিটি বিরুদ্ধে। মামলায় তারা যে চৌহদ্দী দিছে তা স্কুল জায়গা না। তদন্ত কর্মকর্তা এসে তা যাচাই বাচাই করে গেছে। আদালতে মামলা করেছে মামলা জয়ী হয়ে যদি জায়গা পায় তাতে আমাদের কোন সমস্যা নেই।
এ বিষয়ে এলাকার কয়েকজন জানান, সরকারী অনুদানে নির্মিত করা হয়েছে স্কুল ভবন,যা আমাদের গ্রামবাসীর স্বপ্ন পুরনে সহায়ক। তাছাড়া ভুমি দখলের বিষয়টি সুষ্টু সমাধান হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন সচেতন মহল।

 

  • 2
    Shares