635 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের অধিকাংশ শিক্ষার্থীই কি টিভিতে এবং অনলাইনে ক্লাস করতে পারছে- মোঃআজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন। 

  • 79
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    79
    Shares
জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সদস্য ও জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি এবং জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এর সভাপতি মোঃআজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন আজ বলেন।                    করোনাভাইরাস মাহমারী শুরু হওয়ার পর থেকে দেশে অনলাইন বা ডিজিটাল লেখাপড়া চালু হয়েছে। কিন্তু আমাদের দেশে অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পাঁচতারা মানের হলেও সেখানকার সব শিক্ষার্থীরা অবস্থাপন্ন পরিবার থেকে আসে না।বেশিরভাগ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এখনও সমাজের পিছিয়ে পড়া অংশের ছাত্রছাত্রীরা লেখাপড়া করে।
অনলাইনে পাঠদানের ক্ষেত্রে তাদের কথা সবার আগে বিবেচনায় নিতে হবে।অনলাইন ক্লাসে কারও আপত্তি থাকার কথা নয়,কিন্তু শিক্ষার্থীদের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপট ভালোভাবে বিচার করে দেখা উচিত।কারণ অনলাইন কার্যক্রমের সঙ্গে অবকাঠামো, ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথড ও বিদ্যুত্ব্যবস্থা জড়িত,প্রত্যন্ত গ্রামে এসব সুবিধার ঘাটতি রয়েছে।মফস্বল বা গ্রামে থাকা সকল শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার বা স্মার্টফোন কেনার ক্ষমতা নেই ।
আমাদের দেশে যারা লেখাপড়া করে, স্কুল-কলেজ
-বিশ্ববিদ্যালয় সব স্তরেই এখন পর্যন্ত ধনীর চেয়ে গরিবের সংখ্যা বেশি।তাই লেখাপড়ার সম্পদ সকলের কাছে সমান ভাবে পৌঁছোচ্ছে কি না?
নতুন এই ডিজিটাল প্লাটফরম ব্যবহারে ফলে কেউ বঞ্চিত হচ্ছে কি না,যাদের সামর্থ্য কম তাদের কেউ বাদ পড়ে যাচ্ছে কি না, এগুলো লক্ষ রাখতে হবে।
★ মফস্বল বা গ্রামে থাকা সকল শিক্ষার্থীদের জন্য  ৪জি স্পীড এর ব্যবস্থা করুন।
★ যাদের ভাল স্মার্টফোন নাই ( কেনার সামর্থ্য নাই), তাদের ফোনের ব্যবস্থা করুন।
★ যাদের ডাটাপ্যাক কেনার সামর্থ্য নাই, তাদের জন্য ডাটাপ্যাক কেনার জন্য বরাদ্দ দিন।
করোনাকালে শিক্ষার ক্ষয়-ক্ষতি কমিয়ে আনতে বাজেটে শিক্ষাখাতে আরও বরাদ্দ দেওয়ার দরকার ছিলো।কিন্তু আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে শিক্ষায় বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৬৬ হাজার ৪০১ কোটি টাকা।করোনা ভাইরাসে শিক্ষাখাতে ক্ষয়ক্ষতির মোকাবেলায় মোট বাজেটের ১৫ শতাংশ হলে ভাল হতো।
এই সীমিত বাজেটে শিক্ষার ক্ষয়ক্ষতি কমানো যাবেনা।অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার জন্য পর্যাপ্ত প্রস্তুতি নিয়ে,তারপর ক্লাস নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিন। গ্রামের ও সামর্থ্যহীন শিক্ষার্থীদের সাথে কোন বৈষম্য যাতে না হয় সেই ব্যবস্থা করুন।
  • 79
    Shares