220 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

চাঁদপুর বিষ্ণুপুর হাসাদিতে মাছ চাষের দীঘি নিয়ে বিরোধ 

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share
মোঃ জাবেদ হোসেনঃ চাঁদপুর সদর উপজেলাধীন ১ নং  বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে হাসাদি ,ধনপদ্দি গ্রামের দমদম দীঘি  নিয়ে দুটি সমবায় মৎস্য জীবী সমবায় সমিতির মধ্যে দন্দ নিরসনে সদর উপজেলা পরিষদের মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তা গন ঘটনা স্হল পরিদর্শন করেছেন।উভয় পক্ষকে সঠিক কাগজ পত্র সহ উপস্হিত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ১নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ধনপদ্দি, হাসা গ্রামের দমদম দীঘিটি সরকারি সম্পত্তি। বছর বছর উপজেলা পরিষদের মাধ্যমে উম্মুক্ত নিলামে টেন্ডার আহবান করা হয়।সেই মতে হাসাদি মৎস্য সমবায় সমিতি ও ধনপদ্দি আদর্শ মৎস্য জীবী সমবায় সমিতি টেন্ডারে অংশ গ্রহন করে। হাসাদি মৎস্য সমবায় সমিতি টেন্ডারে ৩৫ হাজার টাকা ড্র করে, অপর দিকে ধনপদ্দি আদর্শ মৎস্য জীবী সমিতি ৯০ হাজার টাকা ড্র করে।
সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ধনপদ্দি মৎস জীবী সমবায় সমিতি দমদম দীঘিটি টেন্ডারে পায়। দীঘ্য প্রায় ৩০/৩৫ বছর যাবৎ হাসাদী সমবায় মৎস্য সমবায় সমিতি দমদম দীঘিটি লিজ এনে ভোগ দখল করে আসছিল। স্হানীয় হাজারো লোকজন জানায়, যদি কেউ দীঘিটি লিজ এনে মাছ চাষ করতে চাইতো তাহলে হাসাদী মৎস্য সমবায় সমিতির সভাপতি বাবুল মিজি, সাধারন সম্পাদক দেলু গাজী সহ সদস্যরা তাদের কে দীঘি বুঝে নিতে দেয়নি। বরং তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে দিত।
এ বছর সর্বোচ্চ দর দাতা ধনপদ্দি আদর্শ মৎস্য জীবী সমিতি টেন্ডারের মাধ্যমে দমদম দীঘিটি পেলে ও সমিতির সভাপতি আবুল হোসেন সর্দার এবং সাধারন সম্পাদক আলমগীর হোসেন সহ সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে দীঘিটি বুঝিয়ে দিচ্ছে না।গত ১৯ জুলাই রবিবার সকালে উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা সুদিপ ভট্টাচার্য ও অন্যান্য কর্মকর্তা গন দমদম দীঘি সরজমিনে পরিদর্শন করেন।একই সাথে দুটি সমবায় সমিতির সদস্যদের কাহজ পত্র নিয়ে হাজির হওয়ার নিদ্যেশ প্রদান করেন।
  • 1
    Share