364 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত।

বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার মধ্যে দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।

  • 39
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    39
    Shares

নিজিস্ব প্রতিবেদনঃ   বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার মধ্যে দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে আজ শনিবার শোক  র‌্যালি , বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন, মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আজ শনিবার  সকাল সাড়ে ৯টায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সর্বস্তরের মানুষের অংশ গ্রহনে একটি শোক  র‌্যালি‌ স্থানীয় লোকনাথ উদ্যান (টেংকের পাড়) থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে স্থানীয় বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে এসে শেষ হয়। পরে বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে পুষ্পস্তক অর্পনের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন, পুলিশ সুপার মোঃ মোহাম্মদ আনিসুর রহমান।

পরে পর্যায়ক্রমে জেলা আওয়ামীলীগ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব, পৌরসভা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা পরিষদসহ বিভিন্ন সরকারি ও বে-সরকারি প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগন পুষ্পস্তবক অর্পন করেন।

পরে পৌর মিলনায়তনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী  উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন এর সভাপতিত্বে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গণমানুষের নেতা, যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা, বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সম্মানিত জননেতা র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এম.পি।

তিনি বলেন, ‘১৫ আগস্ট বাঙ্গালি জাতির শোকের দিন। এদিন বাঙ্গালি জাতির ক্ষণজন্মা পুরুষ জাতির পিতাকে হত্যা করেছিল একদল বিপদগামী নরপশু। শোককে শক্তিতে পরিণত করে আমরা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অনেক দূর এগিয়ে যাচ্ছি। সামনের দিকে আরও এগিয়ে যাবো।’

এছাড়া বিশেষ অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান,ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পৌর মেয়র মিসেস নায়ার কবির , ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার সহ বিভিন্ন স্থরের রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগন।

  • 39
    Shares
  • 39
    Shares