ডিএসইতে দরপতনের পাল্লা ভারী

লেখক:
প্রকাশ: ১ মাস আগে

দেশের পুঁজিবাজারে আগের কার্যদিবসের ধারাবাহিকতায় সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস গতকাল রোববার দরপতন হয়েছে। এর মাধ্যমে টানা তিন কার্যদিবস দরপতন হলো। আর শেষ ১৩ কার্যদিবসের মধ্যে ১১ কার্যদিবসেই পুঁজিবাজারে দরপতন হলো। এদিন প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে তার দ্বিগুণের বেশি। ফলে কমেছে সব কয়টি মূল্যসূচক। তবে লেনদেনের পরিমাণ কিছুটা বেড়েছে।

 

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) দাম বাড়ার তুলনায় দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে বেশিসংখ্যক প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট। ফলে এ বাজারটিতেও সব কয়টি মূল্যসূচক কমেছে। সেই সঙ্গে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ।

 

এদিন বাজারে লেনদেন শুরু হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম বাড়ার মাধ্যমে। তবে সূচকে বড় ভূমিকা রাখা গ্রামীণফোনের শেয়ার দাম কমায় সূচক ঋণাত্মক হয়ে পড়ে। শুরুতেই ঋণাত্মক হয়ে পড়া সূচক শেষ পর্যন্ত অব্যাহত থাকে। এমনকি লেনদেনের শেষদিকে সূচকের ঋণাত্মক প্রবণতা বেড়ে যায়।

 

দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইতে দাম বৃদ্ধির তালিকায় নাম লিখিয়েছে ১১০টি প্রতিষ্ঠান। বিপরীতে দাম কমেছে ২৪২টি প্রতিষ্ঠানের। আর ৪০টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। এতে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ৩৯ পয়েন্ট কমে ৬ হাজার ২১৫ পয়েন্টে নেমে গেছে।

 

অপর দুই সূচকের মধ্যে বাছাই করা ভালো ৩০টি কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক আগের দিনের তুলনায় ১৩ পয়েন্ট কমে ২ হাজার ১১৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় ৯ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৩৪৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

 

 

সব কয়টি মূল্যসূচক কমলেও লেনদেনের পরিমাণ বেড়েছে। ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৯৮১ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৯১৬ কোটি ৪২ লাখ টাকা। সে হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ৬৫ কোটি ১৩ লাখ টাকা।

 

এই লেনদেনে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখেছে ফু-ওয়াং সিরামিকসের শেয়ার। কোম্পানিটির ৫২ কোটি ৫৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালসের ৪৯ কোটি ৮৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৩১ কোটি ৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে বিডি থাই অ্যালুমিনিয়াম।

 

এছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে ১০ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছেÑঅ্যাকটিভ ফাইন, মুন্নু ফেব্রিক্স, লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ, অলিম্পিক অ্যাকসেসরিজ, ফু-ওয়াং ফুড, গ্রামীণফোন এবং এনভয় টেক্সটাইল।

 

চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই কমেছে ৮৭ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন হওয়া ২৬০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৯৫টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১২৬টির এবং ৩৯টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। লেনদেন হয়েছে ১৮ কোটি ১৭ লাখ টাকা।

ইমি/পথিক নিউজ

  • ডিএসইতে
  • পাল্লা ভারী