116 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

তরুণ প্রজন্মের জন্য প্রণোদনা খাত রাখার দাবি জানিয়েছেন – মোঃআজিজুল হুদা  চৌধুরী  সুমন ! 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পথিক রিপোর্ট: ভাষা আন্দোলনে ও আইয়ুববিরোধী আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিল,দেশের মুক্তিযুদ্ধে বন্দুক হাতে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল,১৯৭৪ সালের দুর্ভিক্ষে মানুষের দ্বারে দ্বারে সাহায্য পৌঁছে দিয়েছিল,১৯৮৮ বন্যায় ত্রাণ কাজ পরিচালনা করেছিল,৭১’র যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে দেশজুড়ে আকাশ-বাতাস কাঁপিয়েছিল,দেশের বন্যা-খরায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে,করোনা সম্পর্কে মানুষের সচেতনতা বাড়ানোর জন্য পাড়ায়-পাড়ায় কাজ করেছে এবং সবশেষে আম্পানের প্রবল ঝড়ে বিধ্বস্ত প্রান্তিক মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে কারা?— এরা তারাই, যাদেরকে নিয়ে কবি হেলাল হাফিজ লিখেছেন,এখন যৌবন যার,যুদ্ধে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময়।

জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এর সভাপতি মোঃআজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন  কথা বলছেন  আমাদের সেই তরুণ প্রজন্ম কে নিয়ে।
অথচ আমাদের এখন ভয় এই তরুণ প্রজন্ম  কে নিয়েই। কারণ,আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) বলেছে,এই মহামারি বাংলাদেশের কর্ম-উপযোগী যুব সম্প্রদায়ের জন্য একটি বড় ধাক্কা।যুবকদের চাকরির সুয়োগ বহুগুণ হ্রাস পেয়েছে এবং আরও পাবে।যেসব নারীকর্মী কম বেতন পান এবং অনানুষ্ঠানিক খাতে কাজ করছেন, তারাই সবচেয়ে বিপদে পড়েছেন এই সময়।
আইএলও আরও জানিয়েছে দেশের চার ভাগের মধ্যে এক ভাগেরও বেশি অর্থাৎ ২৭ দশমিক ৩৯ শতাংশ যুবক কোনো কাজে,শিক্ষায় ও প্রশিক্ষণের সঙ্গে জড়িত নন। জনসংখ্যার ৬০ শতাংশের বয়স কাজ করার মতো এবং এদের মধ্যে শতকরা ৩ দশমিক ২৪ কোটি শ্রমিকের বয়স ১৫ থেকে ২৯ বছর।
আমরা যখন আমাদের এই ব্যাপক সংখ্যক জনশক্তিকে কোন কাজ দিতে পারবো না তখন এই শক্তি পরিণত হবে আপদে।বেকারত্ব,অভাব আর দারিদ্র তাদের মধ্যে হতাশা তৈরি করবে।যুবকরা কাজ করতে চায়,আয় করতে চায়,জীবনে দাঁড়াতে চায়।
গত কয়েক বছর যাবৎ যুব সম্প্রদায় শুধু চাকরি নয়, নানা ধরণের ব্যবসায়িক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এদেশের যুবকদের নতুন শ্লোগান ছিল ‘চাকরি করবো না, চাকরি দিবো। কিন্তু, এখন এই মহামারি ছেলেমেয়ে গুলোকে স্থবির করে দেবে।
তাই সরকারের কাছে আমার দাবি তরুণ প্রজন্মের জন্য প্রণোদনা খাতের ব্যবস্থা করুন। যেখান থেকে ঋণ নিয়ে তারা আবার নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারবে।