154 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

দরিদ্র জেলে থেকে ইয়াবা পাচারকারীঃ স্বর্ণমানব–৪

অভাবের তাড়নায় কীভাবে একজন দরিদ্র জেলে ইয়াবা পাচারে যুক্ত হয়, তা–ই তুলে ধরা হয়েছে ‘স্বর্ণমানব–৪’ টেলিছবির গল্পে। একই সঙ্গে এর ভয়াবহ পরিণতিও দেখানো হবে এই গল্পে।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অনলাইন ডেস্কঃ অভাবের তাড়নায় কীভাবে একজন দরিদ্র জেলে ইয়াবা পাচারে যুক্ত হয়, তা–ই তুলে ধরা হয়েছে ‘স্বর্ণমানব–৪’ টেলিছবির গল্পে। একই সঙ্গে এর ভয়াবহ পরিণতিও দেখানো হবে এই গল্পে। ‘স্বর্ণমানব–৪’ টেলিছবির এই গল্পে দরিদ্র জেলের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে মোশাররফ করিমকে। সম্প্রতি টেকনাফে শুটিংয়ে অংশ নিয়েছেন তিনি। ২৬ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস উপলক্ষে একসঙ্গে চারটি টেলিভিশন চ্যানেলে দেখানো হবে এই টেলিছবি।

‘স্বর্ণমানব–৪’ টেলিছবির রচয়িতা ভ্যাট গোয়েন্দার মহাপরিচালক মইনুল খান আর পরিচালক আবু হায়াত মাহমুদ। এর আগে এই সিরিজের আরও তিনটি টেলিছবি প্রচারিত হয়েছে। এবার আসছে ‘স্বর্ণমানব’ সিরিজের চতুর্থ পর্ব। সিরিজটির জনপ্রিয়তা ও একই সঙ্গে চলমান সামাজিক বাস্তবতার কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে বলে জানালেন মইনুল খান।

শুটিং–সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, টেকনাফের নাফ নদী, গভীর সমুদ্র, জেলেপাড়া, কক্সবাজার, ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, এয়ারক্রাফটের ভেতর, এয়ারপোর্ট কাস্টমস জোন, ঢাকার একটি পাঁচ তারকা হোটেল এবং উত্তরার একটি ক্লিনিকে টেলিছবির শুটিং হয়েছে। এই টেলিছবির মাধ্যমে করোনামুক্ত হয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান আজিজুল হাকিম। এই অভিনয়শিল্পী জানান, মানসিক শক্তি ও সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেই টেলিছবিটির শুটিংয়ে অংশ নিয়েছেন তিনি। আজিজুল হাকিম বলেন, ‘শুটিং ইউনিট থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে, সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে কাজটি করা হবে। সে কারণে সাহসটা পেয়েছি। “স্বর্ণমানব-৪” টেলিছবির রচয়িতা মইনুল খানের গল্পে আগেও কাজ করেছি। তিনি বলেছেন, এই চরিত্র আমাকে ছাড়া হবেই না। একই সঙ্গে এটাও বলেছেন, নিরাপত্তা ও সুরক্ষা যা দেওয়া দরকার, তিনি নিশ্চিত করবেন। একই সঙ্গে এটি শুধু একটি নাটক কিংবা টেলিছবি নয়, এটি সামাজিক একটি ক্যাম্পেইন, তাই কাজটি করা।’

পরিচালক আবু হায়াত মাহমুদ এর আগের তিনটি সিরিজ নির্মাণ করেছেন। এবারের টেলিছবির গল্প প্রসঙ্গে তিনি বললেন, এবারের প্লট সাজানো হয়েছে টেকনাফের এক জেলে দম্পতিকে ঘিরে। এই পর্বে দেখা যাবে, কীভাবে একজন দরিদ্র জেলে অভাবের তাড়নায় ও পারিপার্শ্বিকতার চাপে ইয়াবা পাচারের সঙ্গে যুক্ত হয়। ঝুঁকি নিয়ে কক্সবাজার থেকে ইয়াবা পাকস্থলীর ভেতরে নিয়ে ঢাকায় পৌঁছে দেয় গডফাদারের কাছে। বিনিময়ে যা পায়, তা দিয়ে সংসারের ভরণপোষণ হয়। আর এই দরিদ্র জেলেকে ব্যবহার করে বড়লোক হয় গডফাদার ও তার দল। একই সঙ্গে শেষ পরিণতি যে অনেক করুণ, তাও দেখানো হবে।

‘স্বর্ণমানব–৪’ টেলিছবির মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম। তিনি আগের দুটি পর্বেও অভিনয় করে প্রশংসিত হন। অন্যান্য ভূমিকায় আছেন জাকিয়া বারী মম, সালাউদ্দিন লাভলু, আজিজুল হাকিম, রুনা খান, আরফান আহমেদ, মনিরা মিঠু, রাশেদ মামুন অপু প্রমুখ।
‘স্বর্ণমানব–৪’ টেলিছবিটি চ্যানেল আইতে বিকেল সাড়ে পাঁচটা, আরটিভিতে বেলা সোয়া তিনটা, এনটিভিতে রাত সাড়ে ১১টা এবং বাংলাভিশন পরের দিন বিকেল পাঁচটায় প্রচারিত হবে বলে জানালেন মইনুল খান।

 

সূত্রঃ প্রথম আলো