184 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

পরবর্তী মহামারীর জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত থাকতে বলেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    5
    Shares

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে লকডাউন উঠতে শুরু করেছে, বিধিনিষেধ শিথিল করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

এখন কোভিড-১৯ সংক্রমণের দ্বিতীয় বা তৃতীয় ঢেউয়ের হাত থেকে কীভাবে বাঁচা যায় তা নিয়ে ভাবতে শুরু করেছে বিশ্বের সব দেশই।

অতীতে বড়ধরনের মহামারি আবার ফিরে আসার ইতিহাস রয়েছে।

এই করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ কি আসতে পারে?

বিশ্বের সব দেশকে শুক্রবার ৭৩তম বিশ্ব স্বাস্থ্য সম্মেলনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সব রাষ্ট্রপ্রধানদের উদ্দেশ্যে সংস্থাটি  বার্তা দিয়েছে

‘পরবর্তী মহামারীর জন্য জন্য তৈরি থাকুন’

এ বছর আলাদা করে কোনও সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়নি। তার বদলে একটি প্রেস রিলিজ হুর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

তাতে সমস্ত দেশের প্রতি হুর আবেদন, অতীত এবং বর্তমান পরিস্থিতি থেকে শিক্ষা নিয়ে নিজেদের আগাম প্রস্তুতির প্রয়োজন। ভালো স্বাস্থ্য পরিকাঠামো থাকলে খুব সহজেই সার্স এবং কোভিডের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনা যায়, সেটা প্রমাণ হয়েছে।

তাই মহামারী হারাতে সবচেয়ে জরুরি স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর উন্নতি করা দরকার। সঠিক পরিকল্পনা, বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে যা সম্ভব, সবটাই করতে হবে বলে জানিয়েছে হু।

হু  জানিয়েছে, সমস্ত দেশের সম্মিলিত চেষ্টায় ভ্যাকসিন তৈরির কাজ চলছে। প্রতিটা দেশ যাতে তার চাহিদা মতো ভ্যাকসিন পায় সেটাও দেখা হবে।

বিশ্বজুড়ে এই মহামারীর কারণে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১২ লাখ ৩২ হাজার ৫১৬ জনের। এর মধ্যে শুধু ভারতে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ২৪ হাজার ৯৮৫ জনের।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার যৌথ উদ্যোগে তৈরি কোভিশিল্ড টিকার চূড়ান্ত পর্যায়ের পরীক্ষা চলছে।

ভারতে ওই টিকা উৎপাদন ও পরীক্ষার দায়িত্বে থাকা সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার সিইও আদর পুনাওয়ালা আশাবাদী, আগামী বছরের জানুয়ারিতে কোভিশিল্ডের চূড়ান্ত পর্যায়ের পরীক্ষা শেষ হলেই সেটি ভারতে পাওয়া যাবে।

অনামিকা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক

পথিক নিউজ

  • 5
    Shares
  • 5
    Shares