164 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

প্রেমিকাকে হত্যার পর প্রেমিক লিখলেন ‘এটা আমি ছিলাম’

  • 147
  • 120
  • 100
  •  
  • 80
  •  
  •  
  •  
    447
    Shares

খারাপ ও হিংসাত্মক আচরণ ও অর্থের জন্য সম্পর্কের অবনতি হয় এক প্রেমিক যুগলের। অবস্থা দিনকে দিন এতই খারাপ হচ্ছিল প্রেমিকাকে হত্যার সিদ্ধান্ত নেন প্রেমিক। সে মোতাবেক হত্যাকাণ্ড ঘটান তিনি। হত্যার পর রাখেন হাতে লেখা চিহ্ণ। প্রেমিকার শরীরে লেখেন- ‘এটা আমি ছিলাম।’

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য সান’র প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রেমিকা ইমোজেন বোহাজুককে যুক্তরাজ্যের গ্রেটার ম্যানচেস্টারের ওল্ডেমে তার ফ্ল্যাটেই মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। তার শরীরে ছুরির বেশকয়েকটি আঘাত দেখতে পায় পুলিশ। তার মরদেহ পড়েছিল বিছানায়। পাশে সাজান ছিল তার পছন্দের সুগন্ধী ও সফট টয়। তদন্তে নেমে ইমোজেনের প্রেমিক ড্যানিয়েল স্মিথকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, কিছুদিন ধরে ইমোজেনের ব্যাংকের কার্ড ব্যবহার করছিলেন ড্যানিয়েল স্মিথ। অ্যাকাউন্ট ফাঁকা করার দুই সপ্তাহ আগেই তিনি ইমোজেনকে হত্যা করেন। হত্যার অপরাধে স্মিথকে কমপক্ষে ১৭ বছর কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয় ম্যানচেস্টার ক্রাউন আদালত। পুলিশি তদন্ত ও আদালতের শুনানির সময় জানা যায়, কীভাবে নিজের প্রেমিকাকে হত্যা করেছিলেন স্মিথ।

জানা গেছে, প্রায়ই দুজনের মধ্যে ঝগড়া হত। স্মিথের খারাপ ও হিংসাত্মক আচরণের বিষয়ে নিজের বন্ধুদেরও কয়েকবার জানিয়েছিলেন ইমোজেন। কিন্তু মার্চ মাসে টাকাপয়সার লেনদেন নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। সেই বিবাদ ধীরে ধীরে ইমোজেনের মৃত্যুর কারণ হয়ে ওঠে।

ময়নাতদন্তের রিপোর্টে জানা যায়, ইমোজেনের মুখ, চোয়াল, মাথার খুলি এবং ঘাড়ে আঘাত করা হয়েছিল। এমনকি শ্বাসরোধের চিহ্নও উঠে আসে রিপোর্টে। আদালতে আইনজীবী জানান, প্রথমে ইমোজেনকে মারধর করেন স্মিথ। তারপর তার গলাটিপে শ্বাসরোধ করেন। সবশেষে ছুরি নিয়ে হামলা চালান। এতে অল্প কিছুক্ষণের মধ্যেই মৃত্যু হয় ইমোজেনের। এরপর নেলপলিশ দিয়ে মৃতদেহের ওপর স্মিথ লেখেন ‘এটা আমি ছিলাম’।

অর্থাৎ স্মিথ এটাই বোঝাতে চেয়েছিলেন যে খুন তিনিই করেছেন। তারপর মরদেহ বিছানায় শুইয়ে তার ওপরে অদ্ভূত একটি নকশা তৈরি করে রেখে যান তিনি।

  • 447
    Shares