402 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট আশুগঞ্জ উপজেলার কাউন্সিলে-অধ্যাপক মুফতি নাজিম উদ্দীন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মুহাম্মদ রফিকুল ইসলামঃ-


ভাস্কর্য মৃত ব্যক্তির মঙ্গলের চেয়ে অমঙ্গল বয়ে আনবে।


পবিত্র কুরআন ও হাদীস শরীফের নির্দেশনা অনুসারে ইসলাম ধর্মে কোন প্রাণীর মূর্তি ও ভাস্কর্য নির্মাণ করা হারাম তথা নিষিদ্ধ। তা পূজা কিংবা সৌন্দর্যের জন্য অথবা ঐতিহ্যগত কারণে হউক। যদিও পৃথিবীর অন্য দেশের মতো অতিতেও আমাদের দেশে ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজয়ে মোড়, টিএসসি’র মোড় ও দোয়েল চত্বরসহ দেশের অনেক জেলা ও থানা শহরের মোড়ে মোড়ে অসংখ্য প্রাণীর ভাস্কর্য তাই প্রমাণ করছে। কুরআন ও হাদীস শরীফে যে ভাস্কর্য হারাম তথা নিষিদ্ধ করেছে কোন মৃত ব্যক্তির নামে সে ভাস্কর্য তৈরি হতে পারেনা। কেননা ভাস্কর্য মৃত ব্যক্তির মঙ্গলের চেয়ে অমঙ্গল বেশী বয়ে আনবে। আজ আশুগঞ্জ উপজেলা ইসলামী ফ্রন্টের কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তিতায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ইসলামী ফ্রন্টের সভাপতি পীরে তরিকত অধ্যাপক মুফতি নাজিম উদ্দীন আল-ক্বাদরী এ কথা বলেন।

উপজেলা ইসলামী ফ্রন্টের সভাপতি পীরে তরিকত মাওলানা নরুল ইসলাম আল-ক্বাদরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে তিনি আরো বলেন, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান অতুলনীয়, যা কখনো ভুলার নয়। বঙ্গবন্ধু না হলে এ দেশ হতনা পেতাম না স্বাধীন সার্বভৌমত্ব। আজ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের নামে যে মূর্তি স্থাপনের পায়তারা চলছে এ ভাস্কর্য স্থাপন হলে বঙ্গবন্ধুর আত্মা কষ্ট পাবে। বঙ্গবন্ধুর আত্মাকে শান্তিদানের লক্ষ্যে ভাস্কর্য স্থাপন বন্ধ করে বঙ্গবন্ধুর নামে মসজিদ ও মাদ্রাসা নামকরণের জন্য তিনি প্রস্তাব করেন।

কাউন্সিল অধিবেশনে উদ্বোধক ছিলেন জেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত বাংলাদেশ সমন্বয় কমিটির সমন্বয়ক আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন মোল্লা। বিশেষ অতিথি ছিল জেলা ইসলামী ফ্রন্টের সহ-সভাপতি অধ্যাপক গোলাম মাওলা, আশুগঞ্জ ফিরুজ মিয়া কলেজের অধ্যাপক খন্দকার মামুন উর রশিদ। প্রধান বক্তা ছিল জেলা ইসলামী ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব এড. মুহাম্মদ ইসলাম উদ্দিন দুলাল। বিশেষ বক্তা ছিল জেলা ইসলামী ফ্রন্টের সহ-সাধারণ সম্পাদক পীরে তরিকত মাও. মাজহারুল ইসলাম আল-ক্বাদরী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মিজানুর রহমান, মাওলানা সামসুল হক ফারুকী, কসবা উপজেলা ইসলামী ফ্রন্টের সহ-সভাপতি মাও. আবুল বাইয়ান মাষ্টার।

কাউন্সিল অধিবেশনটি আজ ০৫ ডিসেম্বর-২০ শনিবার সকাল ১১ ঘটিকায় আশুগঞ্জ চরচারতলা ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসায় অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা ইসলামী ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আতিকুর রহমানের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা ইসলামী ফ্রন্টের সাংগঠনিক সম্পাদক মাও. মহিউদ্দিন, মাও. এমদাদুল হক বকশী, ইসলামী ফ্রন্ট লালপুর ইউনিয়ন শাখার সভাপতি হাফেজ মিজানুর রহমান, যুবসেনার সভাপতি মাও. আনিসুল রহমান, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মুসলিম উদ্দিন, সহ-সাধারণ সম্পাদক হাফেজ জুবায়ের আহমেদ।

উক্ত কাউন্সিলে সর্বসম্মতিক্রমে পীরে তরিকত মাও. নুরুল ইসলাম আল-ক্বাদরীকে আহবায়ক, মাও. মনিরুজ্জামান হানাফীকে যুগ্ম-আহবায়ক ও মাও. এমদাদুল হক বকশীকে সদস্য নির্বাচিত করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট একটি আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়।