288 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাতিঘর এর উদ্যোগে দেড়শতাধিক অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: পবিত্র ঈদুল-ফিতর উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সামাজিক সংগঠন “ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাতিঘর” এর পক্ষ থেকে দেড়শতাধিক অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১১ মে) বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে এইসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। খাদ্য সামগ্রীতে ছিল চাল, ডাল, আলু, পেয়াজ, লবন, সেমাই, চিনি, নুডলস ও দুধ। ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. শওকত হোসেন। অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন সাবেক উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাতিঘরের পৃষ্ঠপোষক এড. তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত। ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাতিঘরের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান পারভেজের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাতিঘরের উপদেষ্টা ডা. হিমেল খান, ডা. সৈয়দ আরিফুল ইসলাম, ডা. ফাইজুর রহমান ফয়েজ, ডা. খোকন দেবনাথ। ঈদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মো. আরজু, খ.আ.ম রশিদুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম কাউসার ইমরান, সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি আল-আমীন শাহীন, প্রেসক্লাবের সহসভাপতি ইব্রাহিম খান শাদাত, দপ্তর সম্পাদক শাহজাহান সাজু, সংস্কৃতি ও তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক মজিবুর রহমান খান ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাতিঘর এর প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আজহার উদ্দিন। তাছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাতিঘরের পরিচালক প্রমীলা দাস প্রমী, আরেফিন হৃদয় ও মনিরুল ইসলামসহ সংগঠনের সভাপতি রাকিবুল ইসলাম ও অন্যান্য সদস্যবৃন্দরাও উপস্থিত ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. শওকত হোসেন বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাতিঘর করোনা কালীন সময়ে, যারা অসহায় কর্মহীন হয়ে পড়েছে তারা যেন ঈদের দিন কষ্ট না করে সেজন্য তারা এই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে। এ কাজটি অব্যশই প্রংশনীয়। আগামীদিনে এই সংগঠনের সফলতা কামনা করছি। তিনি আরও বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাতিঘর’এর সদস্যরা অসহায় রোগীদের প্রতিদিন স্বেচ্ছায় রক্তদান করে যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেছে। রক্তের জন্য এখন আর কোন চিকিৎসকের বসে থাকতে হয়না। তারা সার্বক্ষণিক স্বেচ্ছায় রক্তদান নিয়ে সবাইকে সহযোগিতা করছে। ঈদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণের সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাংবাদিকসহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।