180 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্য আমার উপহার-নির্মলেন্দু গুণ কবিতা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

২০ ফুট × ১৮ ফুট মাপের চার জানালা ও এক দরোজাবিশিষ্ট এই ভবনটি তৈরি করতে আমার ৪ লাখ টাকার মতো খরচ হয়েছে।

একেবার কড়ায়-গন্ডায় সঠিক খরচটা বলতে পারছি না এজন্য যে, আমি খরচের হিসাব কখনও সংরক্ষণ করি না। আমি আমাকে বিশ্বাস করি।

দরোজা এবং চারটি জানালার ওপর নান্দনিক সানশেড না দিলে এবং ৩টি ১৮ ফুট টাইলসের সিঁড়ি না বানালে ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকার মধ্যেই এরকম ভবন তৈরি করা সম্ভব হতো।
আর কংক্রিটের ছাদের পরিবর্তে টিনের চাল বানালে আরও ২৫ হাজার টাকা বাঁচবে। তার মানে এক নম্বর ইট, এক নম্বর সিমেন্ট ও এক নম্বর রড দিয়ে এই মাপের একটি বাড়ি তৈরি করতে সাকুল্যে খরচ পড়বে তিন লাখ টাকার কাছাকাছি। এই ভবনটি আয়ু হবে একশ বছর।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনার বিশ্বনন্দিত আশ্রয়ণ প্রকল্পের টিনশেড বাড়িগুলো তৈরি করার জন্য কীরকম খরচ পড়ছে– আমার সঠিক জানা নেই।

তবে, আপনার জনকল্যাণমুখী আশ্রয়ণ প্রকল্পের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থের অপচয় হচ্ছে বলে কিছু সচিত্র সংবাদ আমি ফেইসবুকে প্রকাশিত হতে দেখেছি।

আশ্রয়ণ প্রকল্পের গৃহ নির্মাণের বেলায় আপনার বরাদ্দকৃত অর্থের অপচয় হচ্ছে কিনা–হলে কতটা হচ্ছে– তা বিচার করে দেখার জন্য কাশবন বিদ্যানিকেতনে সদ্যনির্মিত এই বিজ্ঞান ভবনটিকে আপনি মডেল হিসাবে আপনার টেবিলে রাখতে পারেন।

৬ আগস্ট ২০২১।