662 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

মার্কিন ক্যাপিটল ভবনে হামলার চেষ্টা, ২জন নিহত

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ মার্কিন কংগ্রেস ভবন ঘিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে নতুন করে আবারও প্রশ্ন উঠেছে। স্থানীয় সময় শুক্রবার (২ এপ্রিল) দেশটির ক্যাপিটলে হামলার চেষ্টা হয়েছে। এ ঘটনায় এক পুলিশ অফিসার নিহত ও আরেকজন আহত হয়েছেন। পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন সন্দেহভাজন হামলাকারীও।

ক্যাপিটল পুলিশের বরাত দিয়ে সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামলাকারী ব্যক্তি গাড়ি নিয়ে ক্যাপিটল ভবনের দিকে যাওয়া সময় নিরাপত্তা ব্যারিকেডে ভাঙার চেষ্টা করেন। এসময় তিনি নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যদের ওপর ছুরি নিয়ে হামলার চেষ্টা করেন। জবাবে পুলিশ সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তিকে গুলি করে। এতে হামলাকারী নিহত হন। এর আগেই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দুই সদস্য ছুরিকাঘাতের শিকার হন।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ক্যাপিটল ভবনে গত ৬ জানুয়ারি দাঙ্গার তিন মাস পরে এই হামলাটি সন্ত্রাসবাদ বলে মনে হয়নি।

ওয়াশিংটন ডিসির মেট্রোপলিটন পুলিশ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত প্রধান রবার্ট কন্টি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আক্রমণ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যের ওপর বা অন্য যে কারও ওপর হোক না কেন, এর সঠিক কারণ আমরা বের করব।

ক্যাপিটল পুলিশের ভারপ্রাপ্ত প্রধান ইয়োগান্ডা ডি. পিটম্যান বলেন, অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে হামলায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আহত দুই সদস্যের মধ্যে একজন নিহত হয়েছেন।

২০০৩ সাল থেকে ক্যাপিটল পুলিশের দায়িত্ব পালন করা উইলিয়াম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করে।

কংগ্রেসের ৫৩৫ সদস্যের বেশিরভাগ সদস্য যখন এই হামলার ঘটনা ঘটে তখন অবকাশে ছিলেন। হামলার পরপরই ক্যাপিটল ভবন লকডাউন করা হয়।

তবে বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, ঘটনার পরপরই ক্যাপিটল পুলিশ এক টুইটে বলেছে, সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আহত দুই সদস্যকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। আটক ব্যক্তিকেও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেছেন, ঘটনার সময় গুলির আওয়াজ পাওয়া গেছে।

হামলার তদন্তের সাথে জড়িত দুটি আইন প্রয়োগকারী সূত্র সিবিএস নিউজকে জানিয়েছে, আটক সন্দেহভাজন ভারত থেকে আগত ২৫ বছর বয়সী নূহ গ্রিন।

তবে পুলিশ জানিয়েছে আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে পূর্বে অপরাধ করেছে এমন কোনও তথ্য নেই।

সিএনএন জানায়, ঘটনার পরপরই ক্যাপিটল ভবন এলাকায় ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করা হয়েছে।

টেলিভিশন ফুটেজে দেখা যায়, ক্যাপিটল ভবনের দিকে যাওয়া একটি সড়কে নিরাপত্তা ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করে নীল রঙের একটি গাড়ি।