520 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

যুবসেনা আশুগঞ্জ উপজেলার কাউন্সিলে-অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন মোল্লা।

  • 193
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    193
    Shares

মুহাম্মদ রফিকুল ইসলামঃ-

সমাজে শান্তিশৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় যুবসেনার বিকল্প নেই।

ইসলাম শান্তি ও সহমর্মিতার ধর্ম। প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে ব্যঙ্গচিত্রের মাধ্যমে যারা ইসলাম কে কলঙ্কিত করতে চাচ্ছে তাদের ধ্বংস অনিবার্য। হযতম মুসা (আঃ) ও হযতর ইব্রাহিম (আঃ)’র সময় নবী বিদ্বেষীদের যেভাবে ধ্বংস হয়েছিল আজ যারা রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করছে তাদের ধ্বংসও ঠিক তেমনি ভাবে হবে। বাংলাদেশ ইসলামী যুবসেনা আশুগঞ্জ উপজেলার কাউন্সিল অধিবেশনে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সহ-সভাপতি আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন মোল্লা প্রধান অতিথির বক্তিতায় এ কথা বলেন।

সম্প্রতি ফ্রান্স সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর ব্যঙ্গচিত্রের প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি আরও বলেন, রাসুল বিদ্বেষীরা কখনো ইসলাম ও মুসলমানদের প্রিয়জন হতে পারেনা। তারা তাদের পূর্বপুরুষ ফেরাউন, নমরুদকে অনুসরণ অনুকরণ করে ইসলামের ক্ষতি সাধনে সর্বদা কাজ করে আসছে। তাদের এ ক্ষতিকর চিন্তাচেতনার উপযুক্ত জবাব যথাসময়ে না দিলে তাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের আরও সাহস বৃদ্ধি পেতে পারে। তাই ইসলাম বিদ্বেষী কুচক্রী মহলের কঠিন জবাব ও সমাজের শান্তিশৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ ইসলামী যুবসেনার বিকল্প নেই।

যুবসেনার উপজেলা সভাপতি মাও. আনিসুর রহমানের সভাপতিত্বে কাউন্সিল অধিবেশনে উদ্বোধক ছিলেন উপজেলা ইসলামী ফ্রন্টের সভাপতি পীরে তরিকত আলহাজ্ব নূরুল ইসলাম আল-ক্বাদরী। বিশেষ অতিথি ছিল জেলা ইসলামী ফ্রন্টের সহ-সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মুহাম্মদ গোলাম মাওলা, উপজেলা ইসলামী ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক মাও. মনিরুজ্জামান হানাফি, সাংগঠনিক সম্পাদক মাও. এমদাদুল হক বকশী, শরীফপুর কাদেরিয়া দরবার শরীফের পীর সাহেব মাও. সামসুল হক ফারুকী, চরচারতলা ইসলামিয়া আলিম মাদাসার শিক্ষক মাও. মোজাম্মেল হক জালালি।

প্রধান বক্তা ছিল যুবসেনা জেলা শাখার আহবায়ক মাও. মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। বিশেষ বক্তা ছিল যুবসেনা কেন্দ্রীয় পরিষদের সদস্য মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, জেলা ছাত্রসেনার সভাপতি মুহাম্মদ ইকবাল হোসাইন শাহ বাবুল, উপজেলা ইসলামী ছাত্রসেনার সভাপতি হাফেজ আতাউর রহমান মোল্লা।

মাও. এরশাদুল ইসলামের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন লালপুর ইসলামী ফ্রন্টের সভাপতি মাও. মিজানুর রহমান, হাফেজ মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন, মুহাম্মদ কাজী রুকুন উদ্দিন, মাও. শফিকুল ইসলাম, ক্বারী মুরশেদ আলাম, হাফেজ জোবায়ের আহমেদ, মুহাম্মদ আল আমিন, মুহাম্মদ শাহিন আজিজ, মুহাম্মদ ইসমাইল হোসাইন, হাফেজ সুজন চৌধুরী, মুহাম্মদ জাবেদ মোল্লা, মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন সহ প্রমুখ।

উক্ত কাউন্সিল অধিবেশনে সর্বসম্মতিক্রমে মাও. আনিসুর রহমানকে সভাপতি, মুহাম্মদ মুসলিম উদ্দিন মোল্লাকে সাধারণ সম্পাদক ও মুহাম্মদ এরশাদুল ইসলামকে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করে ৩৯ সদস্য বিশিষ্ট একটি শক্তিশালী কমিটি গঠন করা হয়।

  • 193
    Shares
  • 193
    Shares