296 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

লাকসামে দূর্নীতির দায়ে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত

  • 22
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    22
    Shares

পথিক রিপোর্ট:মশিউর রহমান সেলিম, লাকসাম।

অর্থ আত্মসাত, অনৈতিকতা, অযোগ্যতা, দায়িত্বহীনতা,ক্ষমতার অপব্যবহার ও অসদাচরণের অভিযোগে কুমিল্লার লাকসাম পৌরশহরের ৬নং ওয়ার্ড পশ্চিমগাঁও এলাকায় প্রতিষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপিঠ আল-আমিন ইনস্টিটিউটের প্রধান শিক্ষক মোঃ আবুল বাশারকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ডাঃ আব্দুল মুবিন স্বাক্ষরিত এক নোটিসে এ তথ্য জানা যায়। ওই বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদ কর্তৃক পরিচালিত হয়েছে আসছে।
স্থানীয় একাধিক সুত্র জানায়, ইতিপূর্বে নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড ও ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদ পৃথক-পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করে ওই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। এর আগে প্রধান শিক্ষক আবুল বাশারকে কারণ দর্শানোর নোটিশের প্রেক্ষিতে দেয়া জবাবে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি অসন্তোষ প্রকাশ করে ওই প্রধান শিক্ষককে বহিষ্কারের এ সিদ্ধান্ত নেয়। এ ছাড়া ইতিপূর্বে লাকসাম পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ আব্দুল আলীম দিদারের ১টি অভিযোগের প্রেক্ষিতে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক একটি তদন্তকমিটি গঠিত হয়। ওই তদন্ত কমিটি গত ৮ বছরে প্রধান শিক্ষক আবুল বাশারের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও দুর্নীতিসহ নানাহ অনিয়মের আলামত পায়।
এদিকে সর্বশেষ গত ১৪ নভেম্বর আল-আমিন ইনস্টিটিউটের পরিচালনা কমিটি সার্বিক অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষক আবুল বাশারকে সাময়িক বরখাস্ত করে।
অভিযোগ, তদন্ত কমিটি ও স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায়, ১৯৮৩ সালে লাকসাম শহরের পশ্চিমগাও প্রতিষ্ঠিত হয় আলামিন ইনস্টিটিউট। ইসলামী সমাজ কল্যান পরিষদ কর্তৃক পরিচালিত এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলেও ২০১২ সাল থেকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল বাশার নীজ ক্ষমতা বলে কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে এককভাবে স্বেচ্ছাচারি ও স্বৈরতান্ত্রিক মনোভাবে ওই প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম চালাতে থাকেন। এই সুযোগে তিনি নানা অনিয়ম অর্থ আত্মসাৎ ও দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েন।

  • 22
    Shares
  • 22
    Shares