152 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

শিবচরে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ৭ বছরের স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষন, মামলা করায় ধর্ষকের ভয়ে গ্রাম ছাড়া পরিবার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মাজহারুল ইসলাম (রুবেল), শিবচর (মাদারীপুর) সংবাদদাতা : মুরগী দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নিজের দোকানে নিয়ে গলায় ছুরি ধরে প্রানে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে মাদারীপুরের শিবচরে ৭ বছরের এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষন করেছে সোহান মাদবর নামের এক মুরগী ব্যবসায়ী।

এ ঘটনায় শিশুটির পরিবার থানায় মামলা দায়ের করায় ধর্ষকের পরিবার বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে পরিবারটিকে। ধর্ষকের ভয়ে শিশুটির পরিবার নিজেদের বাড়ি ছেড়ে অন্য ইউনিয়নে এক আত্বীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে।

এজহার ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ৮ মার্চ দুপুরে উপজেলার মাদবরচর ইউনিয়নের খাড়াকান্দি গ্রামের এক টেইলার্স দোকানীর ৭ বছরের মেয়ে সান সাইন মডেল স্কুলের প্রথম শ্রেনীর ছাত্রী বাড়ি থেকে পার্শবর্ত্তী মাদবরচর হাটে তার নানার মুদির দোকানে যায়।

ওই সময় তার নানা দোকানে ছিল না। শিশুটি তার নানার দোকানের সামনে খেলা করছিল। এমন সময় শিশুটির প্রতিবেশি একই হাটের মুরগী ব্যবসায়ী লাবলু মাদবরের ছেলে সোহান মাদবর (২০) ওই শিশুটিকে মুরগী দেওয়ার কথা বলে কৌশলে হাটস্থ বড় ব্রীজ সংলগ্ন তার পল্টি মুরগীর দোকানে নিয়ে যায়। শিশুটিকে দোকানে ঢুকিয়ে দোকানের দরজা বন্ধ করে দেয় সোহান।

এসময় সোহান মুরগী জবাই দেওয়ার ছুরি শিশুটির গলায় ধরে প্রানে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ধর্ষন করে। ধর্ষন শেষে একথা কাউকে বললে প্রানে মেরে ফেলবে বলে আবারও ভয় দেখায়।

শিশুটি বাড়ি ফিরে এসে রক্তমাখা ট্রাউজার ঘরের চৌকির নিচে ফেলে রাখে। এঘটনার পর শিশুটি ধীরে ধীরে অসুস্থ্য হয়ে পড়তে থাকে। গত ১৬ মার্চ শিশুটির মা ঘর ঝাড়– দেওয়ার সময় রক্তমাখা ট্রাউজার দেখতে পেয়ে শিশুটিকে কারন জিজ্ঞেস করলে শিশুটি তার মাকে ঘটনা খুলে বলে।

পরে ১৮ মার্চ বৃহস্পতিবার শিশুটির মা বাদী হয়ে সোহানুরের বিরুদ্ধে শিবচর থানায় মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের পর ধর্ষকের পরিবার শিশুটির মা বাবাকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখালে প্রানের ভয়ে পরিবারটি বাড়ি ছেড়ে পার্শবর্ত্তী পাঁচ্চর ইউনিয়নের ঠাকুরবাজার গ্রামে এক আত্বীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে। পুলিশ অভিযান শুরু করলে ধর্ষক সোহান তার পরিবারসহ গা ঢাকা দিয়েছে।

শিশুটির মা বলেন, আমার ছোট্র মেয়েটিকে সোহান ধর্ষন করেছে। মামলা করার কারনে এখন আবার আমাদের ভয় দেখাচ্ছে। তাই আমরা বাড়ি ছেড়ে অন্য বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছি। আমরা সোহানকে দ্রুত গ্রেফতার করে কঠিন বিচার চাই।

শিশুটি বলেন, সোহান মুরগী দেওয়ার কথা বলে আমাকে দোকানে নিয়ে গলায় ছুরি ধরে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে আমার সাথে অনেক খারাপ কাজ করেছে।

শিবচর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মিরাজ হোসেন বলেন, শিশু ধর্ষনের ঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামীকে ধরতে অভিযান চলছে