542 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

সংবিধান থেকে ‘রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম’ তুলে নেওয়ার ষড়যন্ত্র, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের নিন্দা।

  • 636
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    636
    Shares

মুহাম্মদ রফিকুল ইসলামঃ-

সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দিয়ে ধর্মনিরপেক্ষতা লেখা চালু করার দাবিতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্ট ১০ জনকে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছে। এই অনাকাঙ্ক্ষিত নোটিশের তীব্র নিন্দা জানিয়ে দেশের একমাত্র সুফীবাদের বিশ্বাসী রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান আল্লামা এম এ মান্নান ও মহাসচিব আল্লামা এম এ মতিন বিবৃতি দিয়েছেন। বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সচিব মুহাম্মদ আবদুল হাকিমের স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় বলেন, সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দিয়ে ধর্মনিরপেক্ষতা লেখা চালু করার দাবিতে যে আইনি নোটিশ দেওয়া হয়েছে তা দেশকে অস্থীতিশীল পরিস্থিতির দিকে নিয়ে যাওয়ার ষড়যন্ত্র বলে মন্তব্য করেন।

নেতাদ্বয় বিবৃতিতে আরো বলেন-বাংলাদেশ এখন মধ্য আয়ের দেশ। এ দেশে সকল ধর্মের সম্প্রীতির বসবাস। ধর্ম চর্চা থেকে শুরু করে সকল ক্ষেত্রে ভ্রাতৃত্বের এক জ্বলন্ত উদাহরণ বাংলাদেশ। এহেন শান্তিময় বাংলাদেশ কে অশান্ত করার এক মিশন নিয়ে বিভিন্ন সংগঠন বা সংস্থা স্বাধীনতার পর থেকে স্পর্শকাতর এ বিষয়টা ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার চেষ্টা করলেও বরাবরই ব্যর্থ হয়েছে। গতকাল ১৭ আগস্ট ২০ইং তারিখের যুগান্তর পত্রিকার মাধ্যমে জানাযায় বাংলাদেশ মাইনরিটি সংগ্রাম পরিষদের সভাপতির পক্ষে পাঠানো এই লিগ্যাল নোটিশটি পাঠিয়েছে। যে লিগ্যাল নোটিশে তারই ইঙ্গিত বহন করে। এমন ভূঁইফোড় সংগঠনের অন্যায় ও অযৌক্তিক আইনী নোটিশে সরকার বা সংশ্লিষ্ট কর্তাব্যক্তিগণ পা দেবেন না বলে এমনটিই বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান ও মহাসচিব আশা করেন।

শতকরা ৯২ ভাগ মুসলমানের এই দেশে কোন অযৗক্তিক আইনী নোটিশের ভিত্তি নেই বলে বিবৃতিতে তারা দাবি করেন। বর্তমান সংবিধানের আলোকে দেশ যেভাবে চলছে তাতে নতুন করে বিভ্রান্তিমূলক সমস্যা যারা তৈরী করছে তাদেরকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার জন্যও নেতৃদ্বয় বিবৃতিতে জোর দাবী দাবী জানান।

  • 636
    Shares
  • 636
    Shares