682 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

সবুজ জাতের মালটা চাষ করে সফল হয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কৃষকেরা

অল্প পুঁজিতে বেশি লাভ হওয়ায় বাণিজ্যিকভাবে মালটা চাষ করছেন কৃষকেরা

নিজিস্ব প্রতিবেদনঃ লিচু-কাঁঠাল-পেয়ারার পর এবার মালটা চাষ করে সফল হয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কৃষকেরা। সবুজ জাতের মালটার বাম্পার ফলনে খুশি তারা। অল্প পুঁজিতে বেশি লাভ হওয়ায় বাণিজ্যিকভাবে মালটা চাষ করছেন তারা।

থোকায় থোকায় গাছে গাছে ঝুলছে সবুজ জাতের মালটা। ত্রিপুরা সীমান্তবর্তী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার নোয়াবাদী, মেরশানী, বিষ্ণুপুর, পাহাড়পুর, আখাউড়ার আজমপুর, আমুদাবাদ, রাজাপুর এবং কসবার বিভিন্ন এলাকায় এখন বাণিজ্যিকভাবে চাষ করা হচ্ছে সুস্বাদু রসাল এ ফল। শুরুতে এ ফলটির চাষাবাদ নিয়ে কিছুটা শঙ্কায় থাকলেও বাম্পার ফলনে খুশি কৃষকেরা।

মালটা চাষের জন্য মাটির গুণাগুণ উপযোগী হওয়ায় এবং আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় পতিত জমিতে মালটা চাষে আগ্রহের কথা জানান অন্য কৃষকরাও।

দু’বছর আগে সাইট্রাস ভিলেজ প্রজেক্ট এর আওতায় কৃষকদের বিনামূল্যে মালটার চারাসহ কৃষি উপকরণ বিতরণ করা হয় বলে জানান স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তা।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা হাদিউল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, এলাকাগুলোতে ফল চাষিদের জন্য খুব চমৎকার একটি পরিবেশ।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপ-পরিচালক, মো. রবিউল হক মজুমদার বলেন,  ৩৬ হেক্টির জমিতে আবাদ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় অনেক আবাদ হয়েছে।

কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, জেলায় মোট ১ হাজার ৮৮০টি বসতবাড়ি ও বাগানে মালটার আবাদ হয়েছে। এসব বাগান থেকে ১৭ মেট্রিক টন মালটা উৎপাদনের আশা। যার বাজার মূল্য প্রায় ১৩ কোটি টাকা।

[Sassy_Social_Share total_shares="ON"]