905 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

সাংবাদিক ও কবি লিটন হোসাইন জিহাদের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে ঢাকায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা।

  • 516
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    516
    Shares

পথিক রিপোর্ট: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডিজিটাল নিরপত্তা আইনে আইপি চ্যানেল পথিকটিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বার্তা প্রধান লিটন হোসাইন জিহাদ ও তার ছোট ভাই আর জে শাখাওয়াত এর বিরুদ্ধে দিপক চৌধুরী বাপ্পির ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
আজ দুপুর বারোটায় ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ওয়ার্ল্ড আইপি টিভি এসোসিয়েশন,বাংলাদেশের উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক,কবি ও মিডিয়া জন।
এসময় বক্তব্য রাখেন,ফিডস ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান ড.গোলাম মোস্তফা,অনলাইন মিডিয়া এসোসিয়েশনের সভাপতি কবি সৌমিত্র দেব,ওর্য়াল্ড আইপি টিভি এসোসিয়েশন,বাংলাদেশ এর সদস্য সচিব আনহার সমশাদ,এমইটিভির এমডি মিরাজ উদ্দিন খান সহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ।
এসময় বক্তারা বলেন,আইপি চ্যানেল পথিকটিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও কবি লিটন হোসাইন জিহাদ ও তার ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রেসক্লাবের মতো দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানকে ব্যবহার করে দিপক চৌধুরীর বাপ্পির ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা করার বিষয়টি খুব দু:খজনক। এ মামলাটি সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা ও উদ্যোক্তা তৈরির বিরোধিতা ছাড়া কিছুই নয়। আমরা তার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং এ মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানাচ্ছি।
অনলাইন মিডিয়া এসোসিয়েশনের সভাপতি কবি সৌমিত্রদেব বলেন, অনলাইন গণমাধ্যম এখন সবচেযে জনপ্রিয় মাধ্যম। যেখানে কাজ করে একজন ব্যক্তি নিজের বেতন নিজেই তৈরি করতে পারে। সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশে তৈরির অন্যতম উদাহারণ হলো অনলাইনে কর্মসংস্থান। আইপি টিভিতে ভিডিও মার্কেটিং করে,বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে অসংখ্য যুবক-যুবতি মাসে দশ হাজার থেকে লক্ষাধিক টাকাও আয় করছে। সেক্ষেত্রে প্রায় দশজন ছেলে মেয়ের ইনকামের সুযোগ করে দিয়েছে পথিকটিভি। আমি বলবো ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের নাম ব্যবহারে করে দীপক চোধূরী বাপ্পি তার ব্যক্তিগত আক্রোস মিটাচ্ছে কবি লিটন হোসাইন জিহাদের উপর। এবং সরকারের উদ্যোক্তা তৈরি পথ রুদ্ধ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। আমি অবিলম্বে এ উদ্দেশ্যমুলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানাচ্ছি, নয়তো সারা বাংলাদেশে একযোগে প্রতিবাদ শুরু হবে।
উল্লেখ্য গত ১৫ জুন পথিকটিভিতে কর্মরত ক্রিয়েটরদের নিয়ে সাংবাদিকতার একটি প্রশিক্ষনের আয়োজন করে কবি লিটন হোসাইন জিহাদ। উক্ত অনুষ্ঠানে সাংবাদিকতার প্রাথমিক দিক নিয়ে আলোচনা করেন বিটিভির জেলা প্রতিনিধি মোহাম্মদ আরজু,প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি আল আমিন শাহিন,প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো: রিয়াজ উদ্দিন জামি সহ গাজি টিভি ও যমুনা টিভির প্রতিনিধি।


উক্ত প্রশিক্ষনকে কেন্দ্র করে কতিপয় ব্যক্তি কবি লিটন হোসাইন জিহাদকে ও পথিকটিভির প্রশিক্ষনে উপস্থিত সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মানহানিকর পোষ্ট দেয় ফেসবুকে।ইর্ষান্বিত হয়ে একটি চক্র লিটন হোসাইন জিহাদের নামে ফেইক আইডি খুলে বিভ্রান্তিরকর পোষ্ট প্রদান করে।

যদি এসব ফেইক আইডির বিভ্রান্তিমূলক পোষ্টের কারনে গত ২০ জুন লিটন হোসাইন জিহাদ সন্দেহ জনক একজনের নাম উল্লেখ করে কয়েকজনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ পত্র ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় দায়ের করা হয়।

ফেসবুকের ফেইক পোষ্টকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রেসক্লাবের সদস্য সচিব দিপক চৌধুরী বাপ্পি মিথ্যা এবং প্রতিহিংসা মুলক একটি মামলা প্রদান করেন কবি লিটন হোসাইন জিহাদ ও ভিডিও ক্রিয়েটর আর জে শাখাওয়াত এর বিরুদ্ধে। এমনটাই জানিয়েছেন পথিকটিভির সাথে জড়িত কয়েকজন গণমাধ্যম কর্মী।

  • 516
    Shares