394 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

সৈয়দ উমর ফারুকের মৃত্যুতে মুহাম্মদ রফিকুল ইসলামের শোক প্রকাশ। জানাযা বাদ জুম’আ।

  • 76
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    76
    Shares

নবি বংশের উজ্জলতম নক্ষত্র সিলেট বিজয়ী নাছির উদ্দিন সিপাহসালাহ এর বংশধর। মাছিহাতা দরবার শরিফের গদিনেশিন পীর সাহেব, হযরত মাওলানা শাহ্ সৈয়দ উমর ফারুক (৮০) আর আমাদের মাঝে নেই। তিনি আজ সকাল ১০ ঘটিকায় ঢাকা উইনাইটেড হসপিটালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

পীর তরিকত হযরত মাওলানা শাহ্ সৈয়দ উমর ফারুক (রহঃ)’র আকস্মিক মৃত্যুতে বাংলাদেশ ইসলামী যুবসেনার পক্ষ থেকে যুবসেনা কেন্দ্রীয় পরিষদের সদস্য যুবনেতা মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করে বিবৃতি দিয়েছেন। বিবৃতিতে তিনি বলেন, শাহ্ সৈয়দ উমর ফারুক (রহঃ)’র খুবি সদালাপী মনের মিশুক মানুষ ছিলেন। কখনো আমাকে নাম নিয়ে ডাক দেননি। আমি বা আমার পরিবারের কেউ উনার মুরিদ ছিলামনা। কিন্তু উনি আমাকে উনার মুরিদের চেয়েও অধিক বেশী ভালবাসতেন। সর্বদা উনি আমাকে মন থেকে দাদা ভাই বলে ডাক দিতেন। ২০০৮ সালের জুন মাসে উনার দোয়া নিয়ে আমি, আমার ব্যবসা শুরু করেছিলাম। তিনি আরো বলেন, যখনি শাহ্ সৈয়দ উমর ফারুক (রহঃ) ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে আসতেন আমার দোকানে বসে আমার ও ব্যবসার খোঁজখবর নিয়ে অনেক দোয়া করতেন। আমি উনার দোয়া ও সার্বিক সহযোগিতায় আজ প্রতিষ্ঠিত। শাহ্ সৈয়দ উমর ফারুক (রহঃ)’র মৃত্যুর সংবাদ শুনে হৃদয়টা চুর্ণ বিচূর্ণ হয়ে গেল। আর কখনো উনার পবিত্র জবান থেকে দাদা ভাই ডাক শুনতে পাবনা। তিনি আল্লাহ তায়ালা কাছে প্রার্থনা করে বলেন, হে দয়াময় আল্লাহ তোমার এ নেক বান্দাকে তুমি জান্নাতে আ’লা দান কর। তাঁর পরিবার বর্গসহ ভক্তবৃন্দ কে ধৈর্যধারণ করার তাওফিক দান কর।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য শাহ্ সৈয়দ উমর ফারুক (রহঃ)’র কে ঢাকা উইনাইটেড হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছিল। ৬-৭ দিন যাবৎ তিনি আইসিওতে ছিলেন। খরব নিয়ে জানাযায় দীর্ঘদিন যাবত তিনি বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ০৪ ছেলে ০৩ মেয়ে ও নাতি-নাতনি সহ অসংখ্য অগণিত গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। শাহ্ সৈয়দ উমর ফারুক (রহঃ)’র জানাজার নামাজ আগামীকাল বাদ জোহর মাছিহাতা দরবার শরীফ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে।

  • 76
    Shares
  • 76
    Shares