6569 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে কোয়ালিটি ইন্টিগ্রেটেড এগ্রো লি: পাল্টে দিয়েছে গ্রামীন জীবন, তৈরি হয়েছে হাজার লোকের কর্মসংস্থান।

কোম্পানীর কাঁচামাল সরবরাহের জন্য ব্যক্তিগত উদ্যোগে গড়ে উঠে প্রায় আরো একশত পোল্ট্রি র্ফাম। সব মিলিয়ে তৈরী হয়েছে হাজার লোকের কর্মসংস্থান। এমন কর্মসংস্থান তৈরিতে এই এলাকায় অন্যান্য ব্যবসার চাহিদাও বেড়ে গেছে বহুগুন। উন্নত হতে চলেছে এলাকার রাস্তাঘাট এবং অগ্রগতি হয়েছে ব্যবসা ও বানিজ্যের।
  • 954
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    954
    Shares

পথিক রিপোর্ট: হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার ২নং চৌমুহনী ইউনিয়নের কালিকাপুর একটি গ্রাম। এই গ্রাম সহ আশেপাশের গ্রামের মানুষেরা মুলত কৃষি নির্ভর। এই গ্রামগুলোর অবস্থান সীমান্তের কাছাকাছি হওয়ায় কর্মসংস্থানের অভাবে গ্রামের নতুন প্রজ¥ন জড়িয়ে পড়তো বিভিন্ন ধরনের অপরাধ মুলক কর্মকান্ডে। এখানে গত তিন বছর আগে কোয়ালিটি ফিডস লি: এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান  কোয়ালিটি ইন্টিগ্রেটেড এগ্রো লি: প্রতিষ্ঠিত হয়, যা মুলত একটি মিট প্রসেসিং প্লান্ট। প্রায় তিন একর জায়াগা জুড়ে গড়ে উঠেছে কোয়ালিটি ইন্টিগ্রেটেড এগ্রো লি: নামের এই প্রতিষ্ঠান।  সারা বাংলাদেশে অত্যাধুনিক চারটি  মিট প্রসেসিং প্লান্ট রয়েছে, তার মধ্যে কোয়ালিটি ইন্টিগ্রেটেড এগ্রো লিঃ একটি।  যার প্রধান কাঁচামাল হলো ব্রয়লার মোরগ। কোম্পানীতে বর্তমানে কর্মরত আছে প্রায় তিনশত লোক।
যেহেতু ব্রয়লার মোরগ প্রধান কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে তার কারনে এলাকায় গড়ে উঠেছে ছোট বড় প্রায় একশত ব্রয়লার মোরগের খামার। কোম্পানীকে কেন্দ্র করে মুদি দোকান সহ বিভিন্ন ধরনের ব্যবসার প্রসার হয়েছে। উন্নত হয়েছে এলাকার রাস্তাঘাট।
সীমান্তবর্তী এমন রিমোট এলাকায় কোম্পানী করার কারন জানতে চাওয়া হলে,  ফ্যাক্টরি ইনর্চাজ ফয়েজ আহমেদ আমাদের জানান
আমি আজ প্রায় ১৯ বছর যাবত কোয়ালিটি ফিডস লিঃ কোম্পানীতে কর্মরত আছি। কোম্পানীটি গ্রামীন কর্মসংস্থান তৈরির লক্ষ্যে বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  শ্লোগান “একটি বাড়ি একটি খামার”।
এই শ্লোগানকে সফল করার লক্ষ্যে কোয়ালিটি ফিডস লি: বিরামহীন ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। যার উল্লেখ্য যোগ্য উদাহরন হলো এই এলাকায় গড়ে উঠা পোল্ট্রি খামারগুলো।
তিনি আরো বলেন, আমি যেহেতু গ্রামের ছেলে খুব ইচ্ছে ছিল এলাকার জন্য কিছু করার তার ফলশ্রুতিতে আমি কোম্পানীর মালিক মহোদয়কে বুঝাতে সক্ষম হই যে, কালিকাপুরে ফ্যাক্টরী করার মতো অনুকূল পরিবেশ আছে। আমার এলাকায় একটি কোম্পানী স্থাপন করা হলে বেকার সমস্যার সমাধান হবে। ফলে কোম্পানীর মালিক মহোদয় তিন একর জায়গা জুড়ে মিট প্রসেসিং প্লান্ট ও প্রায় সাত একর জায়গা করে তিনটি ব্রয়লার মুরগের ফার্ম গড়ে তুলেন। এছাড়াও কোম্পানীর কাঁচামাল সরবরাহের জন্য ব্যক্তিগত উদ্যোগে গড়ে উঠে প্রায় আরো একশত পোল্ট্রি র্ফাম। সব মিলিয়ে তৈরী হয়েছে হাজার লোকের কর্মসংস্থান।
এমন কর্মসংস্থান তৈরিতে এই এলাকায় অন্যান্য ব্যবসার চাহিদাও বেড়ে গেছে বহুগুন। উন্নত হতে চলেছে এলাকার রাস্তাঘাট এবং অগ্রগতি হয়েছে ব্যবসা ও বানিজ্যের। মাদকের মতো বিষাক্ত মরন ছোবল থেকে রক্ষা পাচ্ছে এলাকার যুব সমাজ।
কোম্পানীর কার্যক্রম কোন কারনে বাধা গ্রস্থ হচ্ছে কি না জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, কমলপুর গ্রামে গত তিন বছর আগে কোয়ালিটি ফিডের একটি সহযোগী প্রতিষ্ঠান প্রায় ৭ একর জমি ভাড়া নিয়ে কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল। বর্তমানে কোম্পানীর ব্যবসা প্রসারের স্বার্থে ব্রয়লার মুরগির ফার্ম বর্ধিত করার নিমিত্তে চুক্তিনামার অর্ন্তগত অবশিষ্ট ভূমিতে স্থাপনা নির্মান করতে গেলে আনিসুর রহমান আদিল সহ তার অন্যান্য সহযোগীরা বাধা সৃষ্টি করে এবং সোস্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন রকমের অপপ্রচার শুরু করে। যা এলাকায় কর্মসংস্থান তৈরির পথকে রোদ্ধ করে দিয়েছে। এমনকি সামাজিক বিশৃ্খংলা তৈরি করছে। আমি এ বিষয়ে মাধবপুর থানায় একটি সাধারণ ডাইরি করেছি, যার নং-১৪৭৭
এলাকার আবিদ মিয়া সরদার জানান, কোয়ালিটি ইন্টিগ্রেটেড এগ্রো লি: কোম্পানীটি ঘড়ে উঠার ফলে অনেক লোকের কর্মস্থান তৈরি হয়েছে। যা আমাদের এলাকার জন্য আর্শিবাদ। কোম্পানীকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে অনেক ব্রয়লার ফার্ম। আমার ও একটি ব্রয়লার ফার্ম আছে এবং ব্যবসা করে লাভবান হচ্ছি।
কোয়ালিটি ফিডে চাকুরী করে ডা: আজিজুল হক জানায়, অত্যাধুনিক পদ্ধতিতে আমরা এখানে ব্রয়লার মুরগির র্ফাম পরিচালনা করছি। যার কারনে পরিবেশের কোন ধরনের সমস্যা হয় না।
কোম্পানীর এমন কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানিয়েছে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। এছাড়া উদ্যোক্তাদের থামিয়ে দেওয়ার জন্য যে অসাধু মহল কাজ করছে তাদের আইনের আওতায় আনার আহবানও জানান অনেকেই।

  • 649
    Shares
  • 954
    Shares