86 বার দেখা হয়েছে বার পড়া হয়েছে
মন্তব্য ০ টি

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্টের উদ্বোধন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ  সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জেলার অন্যতম প্রধান স্বাস্থ্যকেন্দ্র ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্টের উদ্বোধন করা হয়েছে। সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্টের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

প্ল্যান্টটি চালু হওয়ায় করোনায় আক্রান্ত রোগীরা অক্সিজেন সেবা পাবেন। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের পাশাপাশি সাধারণ রোগীরাও যাতে অক্সিজেন সেবা পায় সেদিকে নজর দেওয়ার জন্য চিকিৎসকদের প্রতি আহবান জানান বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি।

 

 

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক (চলতি দায়িত্ব) ডা. ওয়াহীদুজ্জামান বলেন, ইউনিসেফের সহায়তায় স্পেকট্রা ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড নামে একটি কোম্পানি হাসপাতালে ১০ হাজার লিটার অক্সিজেনের এই প্ল্যানটি নির্মাণ করে। এর মাধ্যমে একসঙ্গে ২৩০ জন রোগীকে অক্সিজেন সেবা দেওয়া যাবে। অক্সিজেন নিয়ে রোগীদের আর কোনো সমস্যা হবে না।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. মো. একরামউল্লাহ, পৌরসভার মেয়র মিসেস নায়ার কবির, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার, হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক (চলতি দায়িত্ব) ডা. ওয়াহীদুজ্জামান, জেলা বিএমএর সভাপতি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ডা. আবু সাঈদ, আবাসিক ডা. রানা নুরুস শামস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামি ও সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্ট চালু না থাকায় করোনাকালে হাসপাতালে কাঙ্ক্ষিত সেবা পায়নি করোনায় আক্রান্ত রোগীরা। করোনায় আক্রান্ত কোনো রোগীর শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বেশী কমে গেলে ওই রোগীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কিংবা কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হতো।