যে ৬ কারণে মিষ্টি কুমড়ার বিচি খাবেন নিয়মিত

মিষ্টি কুমড়া যেমন স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী, তেমনি এর বীজও পুষ্টিগুণে অনন্য। জিংক, ম্যাগনেসিয়াম, স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী ফ্যাট এবং আরও নানা ধরনের উপাদান মেলে মিষ্টি কুমড়ার বিচি থেকে।

সুস্থ থাকতে এবং এনার্জি ধরে রাখতে নিয়মিত খাওয়া চাই এই বীজ।

১। হেলথলাইন ওয়েবসাইট বলছে, মিষ্টি কুমড়ায় প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে। এই উপাদানটি আমাদের নানাভাবে উপকৃত করে। শরীরের বিভিন্ন ধরনের ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে নিয়মিত মিষ্টি কুমড়ার বীজ খাওয়া জরুরি।

২। ভিটামিন ই সমৃদ্ধ মিষ্টি কুমড়ার বিচি খেলে বাড়ে শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা- এমনটা বলছে ফার্মইজি ওয়েবসাইট। মিষ্টি কুমড়ার বীজে থাকা অ্যান্টি-ফাঙ্গাল উপাদান এলার্জি ও অন্যান্য অসুখ থেকে আমাদের দূরে রাখে।

৩। মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে এই বীজে। উপাদানটি ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে দিয়ে উপকারী কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। ফলে হৃদযন্ত্র ভালো থাকে।

৪। ওয়েবএমডি’র একটি রিপোর্ট বলছে, মিষ্টি কুমড়ার বীজে থাকা ম্যাগনেসিয়াম ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে পারে। এছাড়া ম্যাগনেসিয়াম স্ট্রেস দূর করে আমাদের মন শান্ত রাখতে সাহায্য করে।

৫। ফাইবার ও প্রোটিন সমৃদ্ধ মিষ্টি কুমড়ার বীজ অনেকক্ষণ পর্যন্ত পেট ভরিয়ে রাখতে সাহায্য করে। ফলে বাড়তি খাওয়া কমিয়ে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা সহজ হয়।

৬। ত্বক ও চুল ভালো রাখতে সাহায্য করে মিষ্টি কুমড়ার বীজ। পাতে নিয়মিত এই বীজ রাখলে ত্বকে বলিরেখা পড়বে না সহজে, চুলও থাকবে ঝলমলে।

 

কীভাবে খাবেন মিষ্টি কুমড়ার বিচি?

মিষ্টি কুমড়া থেকে বীজ সংগ্রহ করে ধুয়ে শুকিয়ে বয়ামে ভরে রাখুন। স্মুদি, সিরিয়াল, বিস্কুট, সালাদ, স্যুপ, পাস্তা কিংবা বিভিন্ন রান্নায় ব্যবহার করতে পারেন এই বীজ। খাওয়া যায় মচমচে করে ভেজেও।

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *