ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে হকারদের দখলে ফুটপাত,অদক্ষ চালকে বাড়ছে যানজট

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:  দেড়শো বছরের পুরাতন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা। খাতা কলমে প্রথম শ্রেণীর হলেও সুযোগ সুবিধা প্রায় শুণ্য। নাগরিকদের নূন্যতম পায়ে হাটার ফুটপাতও নেই শহরের বেশির ভাগ অংশে। শহরের প্রধান সড়কে যৎসামান্য যেটুকু আছে সেটুকুও হকারদের দখলে।ফলে নাগরকিরা অগত্যা নামছেন সড়কে। সড়কে হাটারও বালাই নেই ।

সড়ক রয়েছে চাহিদার কয়েকগুণ বেশি ব্যাটারী চালিত রিক্সা ও ইজি বাইকের দখলে।দখলে থাকা ফুটপাত, ফুটপাতের পথচারী সড়কে আর সড়কে চাহিদার কয়েকগুন বেশী গাড়ি। সবমিলিয়ে প্রকট যানযটে নাভিশ্বাস শহরবাসীর।

 

সরজমিনে কয়েক জনের সাথে কথা বলে জানা যায়,আগে কাউতলী থেকে কুমারশীল মোড় আসতে সময় লাগতো ১০ মিনিট এখন একই রাস্তা আসতে সময় লাগে ৪০-৪৫ মিনিট। এখন অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে কোন কাজে আসলে কয়েক ঘন্টা সময় হাতে নিয়ে আসতে হয়। এতে ব্যবসায়ের ক্ষতি হয়। দ্রুত যানযট নিরসনে কর্তৃপক্ষ উদ্যোগী হবেন বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

সরজমিনে যানজটের চিত্র প্রত্যক্ষ করতে শহরের বিভিন্ন স্থানে সকাল দশটা থেকে দুপুর দেড়টা নাগাদ ঘুরে ঘুরে প্রায় একই দৃশ্য দেখা গেছে। বরঞ্চ বেলা বাড়ার সাথে সাথে যানযট যেন আরও বেড়েছে।তীব্র রোদের মধ্যে দীর্ঘক্ষন জ্যামে আটকে থেকে অনেকেই হাপিয়ে উঠছিলেন। অনেককেই জ্যামে আটকে থাকতে থাকতে ধৈর্য হারিয়ে গাড়ি থেকে নেমে হেটে গন্তব্যে রওনা দিতে দেখা যায়।

 

ব্রাহ্মণবাড়িয় সরকারি মহিলা কলেজে পরীক্ষা দিতে আসা এক শিক্ষার্থী জানান,পরীক্ষার সময়ে যানযট অসহনীয় পর্যায়ে চলে যায়। আমরা নির্ধারিত সময়ে পরীক্ষার হলে পৌঁছুতে হেটেও রওয়ানা হয় । কিন্তু হকাররা ফুটপাত দথল করে থাকায় স্বাভাবিকভাবে আমরা হেটেও আসতে পাচ্ছি না

 

পথচারিরা জানান , শহরের বেশকিছু রাস্তার পাশে হকার বসাতে রাস্তায় চলাফেরা করতে মানুষের ব্যাঘাত ঘটে, রাস্তার যানজটের প্রধান আরেক কারণ হচ্ছে রাস্তার পাশে বসা হকাররা, এইসব হকার এর জন্য আমাদের চলাফেরা করতে অনেক সমস্যায় পড়তে হয়। প্রশাসনের উচিত এসব হকারদের প্রতি নজর দেয়া। তাহলে যানজট কিছুটা লগুব হবে ।

নোঙ্গর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সভাপতি শামীম আহাম্মেদ জানান ,

এ দিকে পৌর সভার দেয়া লাইসেন্স নিয়ে রিক্সা ,অটো রিক্সা চললেও নেই কোন দক্ষ চালক। ফলে এই যানজট দিন দিন তীব্র হচ্ছে। শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ট্রাফিক পুলিশের ঘাটতি আছে বলে মনে করেন সুধীজনরা। তবে নিয়মিত ট্রাফিক পুলিশের তদারকি বাড়লে অনেকটাই এই  যানজট সমস্যা কমে যেত বলে মনে করেন তারা।

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *