অস্কারের মঞ্চে ‘ওপেনহাইমার’ সিনেমার জয়জয়কার

লেখক:
প্রকাশ: ১ মাস আগে

বিশ্বজুড়ে চলচ্চিত্রের সবচেয়ে আলোচিত পুরস্কার ‘অস্কার’। এবারের ৯৬তম অস্কারের মঞ্চে ঘোষণা করা হয়েছে সেরা সিনেমা, নায়ক-নায়িকাসহ বিনোদন দুনিয়ার বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিজয়ীদের নাম।

 

এবারের অস্কারের মঞ্চে জয়জয়কার ক্রিস্টোফার নোলানের ‘ওপেনহাইমার’র। ‘ওপেনহেইমার’ মোট ১৩টি মনোনয়ন পেয়েছে। এর মধ্যে ৭টি বিভাগে পুরস্কার লাভ করেছে।

 

বিজ্ঞাপন

 

 

ক্রিস্টোফার নোলান একের পর এক অসাধারণ সিনেমা উপহার দিয়ে গিয়েছেন বছরের পর বছর। দ্য ডার্ক নাইট, ইন্টারস্টেলার, ইনসেপশন, টেনেট-এর মতো সিনেমা। কিন্তু ধরা দেয়নি অস্কার। অবশেষে ২২ বছরের সেই অপেক্ষার সমাপ্তি হয়েছে। ক্রিস্টোফার নোলানকে তার দীর্ঘ প্রত্যাশিত অস্কার এনে দিয়েছে ‘ওপেনহাইমার’সিনেমাটি।

 

বিজ্ঞাপন

 

পাশাপাশি ‘ওপেনহাইমার’সিনেমায় আমেরিকান অফিসার লুইস স্ট্রসের ভূমিকায় অভিনয়ের জন্য রবার্ট ডাউনি জুনিয়র জিতে নিলেন অস্কার। তিনি অ্যাকাডেমি পুরস্কারের জন্য তিনবার মনোনীত হয়েছেন। এবার সেরা পার্শ্ব অভিনেতার জন্য অস্কার পেলেন তিনি।

 

রবার্ট ডাউনি জুনিয়র, বিশ্বের কাছে ‘আয়রন ম্যান’ নামে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। এটাই তার প্রথম অস্কার অর্জন। এ ছাড়াও সেরা নির্মাতা, সেরা সিনেমা, সেরা অভিনেতারসহ ৭টি পুরস্কার এ সিনেমার ঝুলিতে।

 

এমা স্টোন অভিনীত ‘পুওর থিংস’ ১১টি বিভাগে এবং পরিচালক মার্টিন স্কোরসেসের ‘কিলারস অফ দ্য ফ্লাওয়ার’ মোট ১০টি মনোনয়ন নিয়ে ওপেনহাইমারের পর দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে।

 

বিজ্ঞাপন

 

এবার দ্বিতীয়বারের জন্য এমা স্টোন ‘পুওর থিংস’সিনেমার জন্য সেরা অভিনেত্রী পুরস্কার লাভ করেছে। ‘ওপেনহাইমার’র সঙ্গে একই সময়ে মুক্তি পাওয়া সিনেমা ‘বার্বি’ এই দৌড়ে একটু পিছিয়ে। এ সিনেমাটি মোট ৮টি বিভাগে মনোনয়ন পেয়েছে। ৯৬ তম অ্যাকাডেমি পুরস্কার ঘোষণা করা হচ্ছে।

 

এবার একনজরে দেখে নিন অস্কারের পুরো তালিকা-

 

সেরা নির্মাতা: ক্রিস্টোফার নোলান ‘ওপেনহাইমার’।

সেরা সিনেমা: ‘ওপেনহাইমার’।

সেরা অভিনেতা: ‘ওপেনহাইমার’র জন্য সিলিয়ান মারফি

সেরা অভিনেত্রী: এমা স্টোন।

সেরা পার্শ্ব অভিনেতা: রবার্ট ডাউনি জুনিয়র।

 

বিজ্ঞাপন

 

সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী: দা-ওয়াইন, জয় র‍্যান্ডলফ, দ্য হোল্ডওয়েজ সেরা।

সেরা মৌলিক গান: ‘বার্বি’।

সেরা ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর: লুডভিগ গোরানসন, ‘ওপেনহাইমার’।

সেরা ডকুমেন্টারি শর্ট ফিল্ম: ‘দ্য লাস্ট রিপেয়ার শপ’।

বেস্ট ফিল্ম এডিটিং: ‘ওপেনহেইমার’।

বেস্ট ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট: ‘গডজিলা মাইনাস ওয়ান’।

 

সেরা সিনেমাটোগ্রাফি: ‘ওপেনহাইমার’র হয়তে ভ্যান হয়তেমা।

বেস্ট ইন্টারন্যাশনাল ফিচার ফিল্ম: ‘দ্য জোন অফ ইন্টারেস্ট’, জোনাথন গ্লেজার নির্মিত।

 

সেরা লাইভ অ্যাকশন শর্ট ফিল্ম: ওয়েস অ্যান্ডারসন এবং স্টিভেন রেলস, দ্য ওয়ান্ডারফুল স্টোরি অফ হেনরি সুগার।

সেরা ডকুমেন্টারি ফিচার ফিল্ম: টোয়েন্টি ডেস ইন মারিওপোল।

 

বিজ্ঞাপন

 

বেস্ট কস্টিউম ডিজাইন: হলি ওয়াডিংটন, পুওর থিংস।

বেস্ট প্রোডাকশন ডিজাইন: ‘পুওর থিংস’র জন্য জেমস প্রাইস এবং শোনা হিথ সুজা মিহালেক।

বেস্ট মেকআপ এবং হেয়ারস্টাইল: ‘পুওর থিংস’র জন্য নাদিয়া স্টেসি, মার্ক কুলিয়ার এবং জোশ ভাস্টেন।

সেরা অভিযোজিত চিত্রনাট্য: আমেরিকান ফিকশন, কর্ড জেফারসন।

সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য: এনিমি অফ এ ফল।

সেরা অ্যানিমেটেড ফিচার ফিল্ম: দ্য বয় অ্যান্ড দ্য হিরো।

ইমি/পথিক নিউজ