ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নারী কন্টেন্ট ক্রিয়েটররা

লেখক:
প্রকাশ: ১ মাস আগে

প্রতিবছরের মতো আজ ৮ মার্চ এবারও বিশ্বব্যাপী পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নারী দিবস। এ বছর নারী দিবসের মূল প্রতিপাদ্য ‘নারীর সমঅধিকার, সমসুযোগ/ এগিয়ে নিতে হোক বিনিয়োগ’। নারী-পুরুষের সমতার লক্ষ্যেই ও নারী প্রতি সম্মান প্রদর্শনেই প্রতিবছর এই দিবস পালিত হয়ে আসছে।

 

সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রেই নারীদের সরব বিচরণ। বর্তমানে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় নারীদের। কেউ ঘরে বসেই দৈনন্দিন জীবনের ভিডিও শেয়ার করছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। কেউবা তার কাজকে তুলে ধরছেন ভিডিও কন্টেন্টের মাধ্যমে। একদিনে যেমন নিজে আয় করছেন তেমনি সমাজের অন্যান্য নারীদের জন্য দৃষ্টান্ত হয়ে উঠছেন। তেমনই কয়েকজন নারী কন্টেন্ট ক্রিয়েটরের কথাই তুলে ধরছি এখানে। যারা নিজেদের যেমন শক্ত অবস্থান তৈরি করেছেন সমাজে তেমনি অন্যান্যদের জন্য আইডল হয়ে উঠেছেন।

 

বিজ্ঞাপন

 

থটস অব শামস

সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন কিন্তু থটস অব শামসকে চেনেন না এমন মানুষ হয়তো পাওয়া যাবে না। আসল নাম শামস আফরোজ চৌধুরী। তবে তিনি সামাজিক যোগযোগমাধ্যমে থটস অব শামস নামেই পরিচিত। চাকরি ছেড়ে হয়েছেন কন্টেন্ট ক্রিয়েটর। শিক্ষা ও বিনোদনমূলক বিভিন্ন ভিডিও তৈরি করে ফেসবুকে ব্যাপক জনপ্রিয় শামস। ভিডিও কনটেন্ট রচনা পরিচালনা, এডিটিং এবং ১২ থেকে ১৫ ধরনের চরিত্র সব একাই করেন শামস। স্কুলের শিক্ষকতা ছেড়ে দিয়ে শাসম ভিডিও তৈরি করেই প্রতি মাসে কয়েক লাখ লাখ টাকা উপার্জন করছেন। সমাজের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন তার ভিডিওতে। এছাড়া আলোচিত বিষয় নিয়েও মজার ভিডিও বানান শামস। তবে তার ভিডিও শুধু মজা নয়, সেই সঙ্গে সেখানে প্রকাশ পায় সমাজের নানান ভালো এবং মন্দ দিক। তার একেকটি ভিডিও ১০- ১২ মিলিয়ন পর্যন্ত ভিউ হয়। ইউটিউব এবং ফেসবুক দুই প্ল্যাটফর্মেই নিয়মিত ভিডিও আপলোড করেন তিনি। এ পর্যন্ত পেয়েছেন নানান সম্মাননা পুরস্কার।

 

আরও পড়ুন

 

বিজ্ঞাপন

 

মুনজেরিন শহীদ

অনলাইন শিক্ষক হিসেবে মুনজেরিন শহীদের নাম সবার মুখে মুখে। সহজ সাবলীল ভাষায় অনলাইনে ইংরেজি শিক্ষাদানের জন্য জনপ্রিয় নাম মুনজেরিন শহীদ। প্রতিদিন ৩০ মিলিয়নেরও বেশি শিক্ষার্থী ইংরেজি শিখছে মুনজেরিন এর ক্লাসগুলো থেকে। মুনজেরিন শহীদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। তিনি তার মাস্টার্সে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অর্জন করেন। বিশ্বের অন্যতম সেরা বিদ্যাপীঠ অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্কলারশিপে তার দ্বিতীয় মাস্টার্স সম্পন্ন করেন ইংরেজি শিক্ষার ওপর। মুনজেরিন বর্তমানে টেন মিনিট স্কুলের শিক্ষক এবং মানবসম্পদ বিভাগের প্রধান নির্বাহী হিসেবে কর্মরত আছেন। তার দেখাদেখি অনেক নারীই অনলাইনে বিভিন্ন বিষয়ে ক্লাস নিয়ে থাকেন। তিনি ঘরে বসেই কীভাবে ইংরেজি শেখা যায় তার কৌশল নিয়ে বেশ কিছু বই লিখেছেন।

 

হাবিবা আক্তার সুরভী

যারা একটু ফ্যাশন সচেতন তাদের কাছে ‘টেলস অব আ বং গার্ল’ সুরভী খুবই পরিচিত। তবে এটি ছিল তার আগের পরিচিতি। বর্তমানে তিনি সুরভী নামেই বেশি পরিচিত। নিজের বুটিক হাউস শরদিন্দু পরিচালনা করেন। সেই সঙ্গে ফেসবুকে নানান ধরনের কন্টেন্ট তৈরি করে থাকেন। বিশেষ করে ডেইলি রুটিন এবং সাজগোজের ভিডিও। তিনি একই সঙ্গে সফল উদ্যোক্তা, নকশাকার, সোশ্যাল ইনফ্লুয়েন্সার। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থী ছিলেন সুরভী। বর্তমানে লন্ডনের ইউনিভার্সিটি ফর দ্য ক্রিয়েটিভ আর্টসে ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ের ওপর মাস্টার্স করছেন। কাজের মাধ্যমে সমাজে ইতিবাচক ভূমিকা রাখার স্বীকৃতি ও সম্মাননা স্বরূপ কিছুদিন আগেই ফ্যাশন ক্যাটাগরিতে পেয়েছেন ‘দ্য মার্ভেল অব টুমরো’ অ্যাওয়ার্ড।

 

ফারিয়া তাহসিন ইরা

ফুডিজম নামেই তিনি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। যারা খেতে পছন্দ করেন তারা খুব ভালো করেই চেনেন এই ব্লগারকে। করোনার সময় থেকেই তিনি ফুড রিভিউ করছেন। বিভিন্ন জায়গার, বিভিন্ন রেস্তোরাঁর খাবারের স্বাদ কেমন, দাম কেমন এবং কোথায় কী পাওয়া যায় সে সম্পর্কেই তার ভিডিওতে জানান ইরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন। ঢাকার মিরপুরের বাসিন্দা ইরা পড়াশোনার পাশাপাশি তার কন্টেন্ট ক্রিয়েশনের কাজ করেছেন। যা থেকে তিনি মাসে আয় করেন। ইরার কাজে উৎসাহী হয়ে অনেক নারীই ফুড ব্লগিংকে পেশা হিসেবে নিয়েছেন। যারা মাসে এ থেকে আয় করছেন লাখ টাকা।

ইমি/পথিক নিউজ