মেছো বাঘ ধরতে হুলস্থুল কাণ্ড

লেখক:
প্রকাশ: ১ মাস আগে

ফরিদপুরের ভাঙ্গা পৌর সদরের ছিলাধরচর গ্রামে বিরল প্রজাতির একটি মেছো বাঘ দেখা গিয়েছে। তবে ফরিদপুর থেকে বনবিভাগের একটি টিম সোমবার (১১ মার্চ) বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়েও বাঘটি আটক করতে ব্যর্থ হয়।

 

সোমবার (১১ মার্চ) সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মেছো বাঘটি দেখতে এলাকার উৎসুক জনতার ভিড় লেগে যায়। এরপর বাঘটিকে আটকের পর হঠাৎ তার গলা থেকে রশি ফসকে যায়। পরে বাঘটি গাছের আরও প্রায় ৬০ ফুট উপরে উঠে যায়। বনবিভাগের টিমটি বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে শেষ পর্যন্ত ফিরে আসে।

 

বিজ্ঞাপন

 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মাঝারি আকৃতির গায়ে ছোপ ছোপ ডোরা কাটা দাগের একটি মেছোবাঘ নিজ আস্তানা ভুলে লোকালয়ে ঢুকে পড়ে। পরে কয়েকটি কুকুর মেছোবাঘটিকে তাড়া করে। উপায়ান্তর না পেয়ে বাঘটি প্রায় আশি ফুট উঁচু একটি রেইন্ট্রি গাছে আশ্রয় নেয়। স্থানীয় জনতা, পুলিশ প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, ফরিদপুর জেলা বন বিভাগ চেষ্টা চালিয়ে ধরতে ব্যর্থ হয়। খবর পেয়ে ফরিদপুর থেকে বনবিভাগের একটি টিম বিকেলে ঘটনাস্থলে এসে প্রথমে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত তারা ব্যর্থ হয়। এরমধ্যে জনতার ভিড় ও উদ্ধারকারীদের তৎপরতায় বাঘটি গাছের আরও উপরে উঠে যায়।

 

বিজ্ঞাপন

 

এরপর রাত সাড়ে ৯টার পর থেকে ঢাকার এনিম্যাল রেস্কোয়ার্স বাংলাদেশ (এআরবি) এর একটি টিম ঘটনাস্থলে বাঘটিকে উদ্ধারের জন্য প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে উদ্ধার করতে সক্ষম হননি।

 

স্থানীয় ব্যবসায়ী সম্রাট মোল্লা জানান, সোমবার সকালে রাস্তা দিয়ে স্থানীয় লোকজন যাওয়ার সময় পৌর সদরের ছিলাধরচর গ্রামের অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান রানার বাগানে রেইন্ট্রি গাছের প্রায় ৪০ ফুট উপরে একটি মেছো বাঘ দেখতে পায়। এরপর খবর ছড়িয়ে পড়লে বাঘটিকে এক নজর দেখার জন্য উৎসুক জনতা ভিড় জমায়।

 

এনিম্যাল রেস্কোয়ার্স বাংলাদেশ (এআরবি) এর সদস্য লিমন জানান, প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টা করার পর মেছো বাঘটিকে আমরা নিচে নামিয়ে আনি কিন্তু বাঘটি পালিয়ে যায়। আমার দেখা মতে বাঘটি বেশ বড় ছিল।

 

বিজ্ঞাপন

 

ভাঙ্গা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) খালিদ হাসান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। কিন্তু শেষমেশ কোনো জায়গা থেকে বাঘটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তবে জনতার ভিড় সামলাতে ও আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে ঘটনাস্থলে পুলিশ কাজ করছে।

 

 

ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এবিএম কুদরত এ খুদা বলেন, খবর পেয়ে ভাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস এবং ভাঙ্গা থানাকে অবহিত করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। কিন্তু ফায়ার সার্ভিসের এসব পশু উদ্ধারে কিছু বিধি নিষেধ থাকায় বন বিভাগের সহায়তা নেওয়া হয়।

 

বিজ্ঞাপন

 

এ ব্যাপারে ভাঙ্গা বন বিভাগের সহকারী কর্মকর্তা ফারুক সরদার জানান, ফরিদপুর থেকে একটি টিম মেছো বাঘটি উদ্ধার করতে যায়। বাঘটিকে আটক করার পর হঠাৎ তার গলা থেকে রশি ফসকে যায়। পরে বাঘটি গাছের আরও প্রায় ৬০ ফুট উপরে উঠে যায়। এ অবস্থায় সন্ধ্যার পর আমরা চলে আসি।

এ ব্যাপারে ফরিদপুর বনবিভাগের রেঞ্জ অফিসের বনপ্রহরী জাহিদুল ইসলাম বলেন, এটি বিরল প্রজাতির মেছো বাঘ। আমরা প্রথমে গাছে উঠে বাঘটি আটকানোর চেষ্টা করি। পরবর্তীতে প্রায় ৬০ ফুট উচ্চতায় গাছে উঠে যায়। চেষ্টা করে এত উপর থেকে বাঘটি আটকাতে সক্ষম হইনি।

ইমি/পথিক নিউজ