রোজা রাখার আগে যে কয়েকটি মেডিকেল টেস্ট করা জরুরি

লেখক:
প্রকাশ: ১ মাস আগে

একটানা একমাস রোজা রাখার জন্য শারীরিকভাবে সুস্থ হওয়া জরুরি। সারাদিন রোজা রাখতে গিয়ে দেখা যায় অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ কারণে রোজা রাখার আগে কয়েকটি মেডিকেল টেস্ট করা জরুরি।

 

বিশেষ করে গর্ভাবস্থা, ডায়াবেটিস, হার্ট, কিডনি বা লিভারের রোগ ও কোনো গুরুতর অসুস্থ ব্যক্তিদের জন্য সাধারণত উপবাসের পরামর্শ দেন না চিকিৎসকরা।

 

বিজ্ঞাপন

 

তাই আপনি রোজা রাখতে বা উপবাসে কতটা ‘সক্ষম’ তার জন্য স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে হবে। যদি কোনো সমস্যা না থাকে তাহলে আপনি সুস্থভাবে রোজা রাখতে পারবেন।

 

আর যদি কোনো সমস্যা দেখা দেয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে তবেই রোজা রাখতে হবে। জেনে নিন কোন কোন চেকআপ করা জরুরি-

 

বিজ্ঞাপন

 

জেনারেল বডি চেকআপ

 

এই চেকআপের মাধ্যমে আপনি স্বাস্থ্যের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারবেন। সাধারণ স্বাস্থ্য পরীক্ষা শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলো কীভাবে কাজ করছে সে সম্পর্কেও ধারণা দেয়। সাধারণ স্বাস্থ্য পরীক্ষায় অন্তর্ভুক্ত কিছু টেস্ট হলো-

 

১. ফুল ব্লাড কাউন্ট (সংক্রমণ, রক্তা স্বল্পতা ও অন্য গুরুতর স্বাস্থ্য সমস্যা প্রকাশ করে।)

২. থাইরয়েড স্ক্রিনিং (থাইরয়েড সম্পর্কিত সমস্যা ও রোগ)

৩. কিডনি ফাংশন টেস্ট (কিডনি রোগ সম্পর্কে জানায়)

৪. লিভার ফাংশন পরীক্ষা (লিভারের রোগ ও ক্ষতি যাচাই করে)

৫. টোটাল কোলেস্টেরল (হৃদরোগ ও রক্তনালির রোগের সন্ধান দেয়)

৬. ব্লাড সুগার (ডায়াবেটিস বা প্রাক-ডায়াবেটিস পরিমাপে)

 

বিজ্ঞাপন

 

হার্টের স্বাস্থ্য পরীক্ষা

 

আপনার যদি হৃদরোগের ইতিহাস থাকে বা ওষুধ সেবন করেন, তাহলে হার্টের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাই ভালো। এতে আপনার হার্টের স্বাস্থ্য সম্পর্কে ধারণা পাবেন ও ফলাফলের ভিত্তিতে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন।

 

আপনার যদি শ্বাসকষ্ট হয়, পায়ের গোড়ালি ফুলে যায় বা ক্লান্তি বোধহয় তবে আপনার হার্টের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা উচিত (আপনার বয়স নির্বিশেষে)।

 

বিজ্ঞাপন

 

ডায়াবেটিস পরীক্ষা

 

অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিসে ভুগছেন যারা, তাদের জন্য দীর্ঘক্ষণ উপবাস থাকা বিপজ্জনক হতে পারে। টাইপ ১ ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের জন্য আরও বেশি ঝুঁকি আছে।

 

বিজ্ঞাপন

 

এ কারণে রমজানের রোজা রাখার আগে ডায়াবেটিস মাপা ও চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। ডায়াবেটিস রোগীদের উচিত নিয়মিত ব্লাড সুগার ও এইচবিএ১সি স্ক্রিনিং করা।

 

পেপটিক আলসার পরীক্ষা

 

আলসারের রোগীদের ক্ষেত্রে দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে থাকা জীবন-হুমকির কারণ হতে পারে। আপনি যদি খাবারের সময় ও পরে পেটে ব্যথা অনুভব করেন তাহলে রোজা শুরু করার আগে পেপটিক আলসার পরীক্ষা করা উচিত।

 

কোভিড টেস্ট

 

মনে হতে পারে এটি অতীতের জিনিস হয়ে উঠছে, তবে এখনও খুব বাস্তব কোভিড। সংক্রমণ বা পোস্ট-ইনফেকশন আপনার জন্য রমজানের রোজাকে আরও কঠিন করে তুলতে পারে। এ কারণে কোভিড টেস্ট করুন।

 

ভিটামিন বি ১২ পরীক্ষা

 

এটি একটি রক্ত পরীক্ষা, যা আপনার শরীরের ভিটামিন বি ১২ এর মাত্রা প্রকাশ করে। এই ভিটামিন শরীরকে স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে সাহায্য করে। কারণ এটি মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য, রক্তকণিকা উৎপাদন ও স্নায়ু স্বাস্থ্যকে সহায়তা করে।

 

ভিটামিন বি ১২ এর ঘাটতির কারণে দুর্বলতা, রক্ত স্বল্পতা বা স্নায়বিক সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। তাই রমজানের আগে এই পরীক্ষা করার মাধ্যমে আপনি উপবাসের জন্য নিজেকে আরও প্রস্তুত করতে ও এর অভাবের কারণে স্বাস্থ্য সমস্যা প্রতিরোধ করতে পারবেন।

 

ভিটামিন ডি পরীক্ষা

 

এটিও একটি রক্ত পরীক্ষা, যা শরীরে ভিটামিন ডি এর মাত্রা প্রকাশ করে। একে সানশাইন ভিটামিনও বলা হয়। সূর্যের আলোর মাধ্যমে শরীরে ভিটামিন ডি তৈরি হয়। এই ভিটামিন সুস্থ হাড়, দাঁত, পেশী, স্নায়ু ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

 

যদি শরীরে এই ভিটামিনের ঘাটতি থাকে, তাহলে মেজাজ খিটখিটে, দুর্বলতা, পেশি দুর্বলতা ও অন্য স্বাস্থ্য সমস্যা হতে পারে।

 

এ কারণে রমজানের আগে ভিটামিন ডি পরীক্ষাও করা উচিত। যদি এর মাত্রা কম থাকে তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে এর সাপ্লিমেন্ট গ্রহণ করতে হবে।

 

সূত্র: হেলথট্র্যাকা/এএইচদুবাই

ইমি/পথিক নিউজ