বিদ্যালয় বন্ধে হাইকোর্টের আদেশ উপেক্ষিত

লেখক:
প্রকাশ: ১ মাস আগে

রমজান মাসে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে নাকি খোলা থাকবে তা এখন উচ্চ আদালতের সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করছে।

 

 

এ বিষয়ে আপিল শুনানির জন্য আজ মঙ্গলবার (১২ মার্চ) দিন ধার্য করেছেন আদালত। এদিকে গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় দেশের আকাশে রমজান মাসের চাঁদ দেখা গেছে। তাই হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী প্রথম রোজার দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না দিলেও মঙ্গলবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে বলে আনঅফিসিয়ালি জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, যেহেতু মঙ্গলবার এ বিষয়ে আদালত রায় দেবেন, আশা করছি কালই এটির চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হবে। যেহেতু চাঁদ দেখা গেছে, তাই মঙ্গলবার যথারীতি ক্লাস বন্ধ থাকবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে এ বিষয়ে আদালতের আদেশ মানতে হবে। আদালতের আদেশ যেহেতু এখন পর্যন্ত বন্ধ রাখার পক্ষে, সুতরাং রোজার প্রথমদিন স্কুল বন্ধ থাকবে বলে মনে করছেন তারা।

 

 

এ বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত কী? জানতে চাইলে মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবুল খায়ের বলেন, রমজানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে নাকি বন্ধ থাকবে তা এখন নির্ভর করছে উচ্চ আদালতের আদেশের ওপর। আজ যেহেতু আপিল বিভাগ চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেননি, তাই হাইকোর্টের আদেশ বহাল থাকবে এমনটা ধরে নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো আদালতের আদেশ মানবে। তার মানে মঙ্গলবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে? এমন প্রশ্নে জনসংযোগ কর্মকর্তা বলেন, ‘নো কমেন্ট’। যেহেতু আদালতের বিষয়, আদালত যেভাবে বলেছেন, সেভাবে চলতে হবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে।

 

এ বিষয়ে সমাধান চেয়ে সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানরা ফোন করছেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে (মাউশি)। কিন্তু তারা কোনো সিদ্ধান্ত জানাতে পারছেন না।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি এক প্রজ্ঞাপনে রমজানের সময় ১৫ দিন সরকারি-বেসরকারি নিম্নমাধ্যমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শ্রেণি কার্যক্রম চালু রাখার সিদ্ধান্তের কথা জানায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এরপর রমজানের প্রথম ১০ দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান কার্যক্রম চালু থাকবে বলে জানায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ও। উভয় সিদ্ধান্তের বৈধতা নিয়ে হাইকোর্টে রিট করেন এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক শফিউর রহমান চৌধুরী।

 

 

এরপর রোববার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত স্থগিত করে রমজানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার আদেশ দেন আদালত। হাইকোর্টের আদেশের বিপক্ষে গতকাল সোমবার সকালে আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ। বিকেলে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম হাইকোর্টের আদেশ আপাতত বহাল রাখেন। একইসঙ্গে এ বিষয়ে আপিল শুনানির জন্য মঙ্গলবার দিন ধার্য করেন।

 

কোথাও খোলা কোথাও বন্ধ: এদিকে হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী, আপিলের রায়ের বিষয়ে নতুন কোন আদেশ না আসা পর্যন্ত প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ থাকার কথা। কিন্তু আজ কোন কোন স্কুল খোলা রেখেছে, আবার কোনটি বন্ধ রেখেছে।

 

 

ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের বন্ধের কথা গতকালই জানিয়েছে। বিজিপ্রেস হাইস্কুল খোলা রাখা হয়েছে। ধানমণ্ডি এলাকায় বেশিরভাগ স্কুলই আজ খোলা রয়েছে। কাকরাইলের উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের প্রিন্সিপাল জানিয়েছেন, এখনো স্কুল বন্ধের নির্দেশনা পাইনি, তাই খোলা থাকছে। ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজ আজ পাঠদান বন্ধ রেখেছে।

 

এবিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী গতকাল একটি গণমাধ্যমকে বলেন, অ্যাটর্নি জেনারেলকে আমাদের আইনি অবস্থানের কথা জানিয়েছি। সংবিধান অনুযায়ী বিদ্যালয়গুলোর ছুটি ঘোষণা নির্বাহী এখতিয়ার। ক’দিন ছুটি থাকবে বা থাকবে না এটা একটা বিশেষায়িত বিষয়। এটা উচ্চ আদালতের এখতিয়ার নয়। এটা আমরা সর্বোচ্চ আদালতে উপস্থাপন করবো।

ইমি/পথিক নিউজ