রমজানে ইতিকাফের মানত যেভাবে পূর্ণ করতে হবে

লেখক:
প্রকাশ: ৩ সপ্তাহ আগে

কোনো মসজিদে এক বা একাধিক দিন দুনিয়াবি কাজকর্ম থেকে অবসর নিয়ে সওয়াবের নিয়তে অবস্থান করাকে ইতিকাফ বলে। ইতিকাফ ইসলামে ফজিলতপূর্ণ একটি আমল। কোরআনে আল্লাহ তাআলা বলেছেন, আমি ইবরাহিম ও ইসমাইলকে নির্দেশ দিলাম, তোমরা আমার ঘরকে তওয়াফকারী, ইতিকাফকারী ও রুকু–সিজদাকারীদের জন্য পবিত্র রাখো। (সুরা বাকারা: ১২৫)

 

রমজানের শেষ দশদিন ইতিকাফ করা সুন্নত। নবিজি (সা.) প্রতি রমজানে দশ দিন ইতিকাফ করতেন। যে বছর তিনি ইন্তিকাল করেন, ওই বছর তিনি বিশ দিন ইতিকাফ করেছিলেন। (সহিহ বুখারি)

 

 

এ ছাড়া সারা বছরই নফল ইতিকাফ করা যায়। ইতিকাফের মানত করলে তা পূরণ করা ওয়াজিব। ওয়াজিব ইতিকাফে রোজা রাখা বাধ্যতামূলক।

 

কেউ যদি কোনো রমজানে শেষ দশ দিন ইতিকাফের মানত করে, তাহলে ওই রমজানেই তা পূর্ণ করা উচিত। যদি কোনো কারণে ওই রমজানে ইতিকাফের মানত পূর্ণ করতে না পারে, তাহলে তার ওপর রমজান ছাড়া অন্য কোনো মাসে রোজাসহ দশ দিন ইতিকাফ পালন করা ওয়াজিব হবে।

পরবর্তী রমজানে ইতিকাফ করলে ওই মানতের কাজা আদায় হবে না। কারণ মানতের ইতিকাফ কাজা হয়ে গেলে তা রমজানে আদায় করা যায় না; বরং রমজান ছাড়া অন্য মাসে আলাদা রোজা রেখে আদায় করতে হয়।

সূএ: জোগোনিউজ

ইমি/পথিক নিউজ